যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    তেলেঙ্গানায় ক্ষমতায় আসতে চন্দ্রশেখরকে সমর্থনের প্রস্তাব বিজেপির, শর্ত একটাই ত্যাগ করতে হবে ওয়াইসিকে।    অধ্যাদেশ জারি করে রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে গেরুয়া স্রোত রাজধানীতে।    “সংখ্যালঘু ভোটের জন্য হিন্দু বিদ্বেষী বাংলাদেশি ধর্মগুরুকে সভা করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য”: দিলীপ।    প্রাক্তন কেএলও লিঙ্কম্যানদের তৃণমূলে যোগদান।    কেন চোলাই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না? মন্ত্রিসভার বৈঠকে ক্ষুব্ধ মমতা।    লোকসভার আগে রাজ্যে ৭ হাজার নতুন শিক্ষক পদে নিয়োগ সরকারের।    “বিজেপির রাজ্য গুজরাট, বিহারে মদ নিষিদ্ধ তবে এই বাংলায় কেন তা হচ্ছে না “: মুকুল।    ভুয়ো কল সেন্টার খুলে বিদেশে কোটি টাকার প্রতারণা, পাকড়াও ৪ যুবক।    “শাসক দলের রক্তক্ষয়ী রাজনীতি”: নদিয়ায় বিজেপির রক্তদান শিবির।    আইনজীবী খুনের ঘটনাতেও উঠে আসছে পরকীয়া তত্ত্ব, আটক স্ত্রী।    রোগীমৃত্যুর জেরে বাঙুর হাসপাতালে ভাঙচুর, মারধর চিকিৎসকদের, আটক ৮।    বাড়ি থেকে সংগ্রহশালা, পরিবর্তন হতে চলেছে রাজ কাপুরের জন্মভিটে।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিয়ের পর প্রথম দীপিকা প্রসঙ্গে মুখ খুললেল রণবীর।


১২ ঘণ্টায় ২১টি পেসমেকার বসিয়ে নজির এসএসকেএমের

আমাদের ভারত, কলকাতা, ১৩ মার্চ: ১২ ঘণ্টায় ২১ টি পেসমেকার! গড় হিসাবে ঘণ্টায় প্রায় দু’টো। সরকারি হাসপাতালে এহেন চমকপ্রদ পরিষেবার নমুনা রাখল কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতাল। যা কি না সারা দেশের মধ্যেই বেনজির বলে মনে করছে চিকিৎসকমহল।

সাধারণত এ রাজ্যের এক-একটি মেডিক্যাল কলেজ মাসে গড়ে ৩০টি পেসমেকার বসায়। সেখানে একদিনে ২১ জনের শরীরে স্থায়ী পেসমেকার বসানো যে চাট্টিখানি কথা নয়, স্বাস্থ্যকর্তারা তা একবাক্যে মানছেন।

পিজি হাসপাতালের অধিকর্তা ডা. অজয় রায়ের দাবি, পূর্বাঞ্চলের কোনও সরকারি হাসপাতালের ঝুলিতে এমন রেকর্ড নেই বলেই মনে হয়। পিজি-র কার্ডিওলজি বিভাগ অবশ্য অন্য মেডিক্যাল কলেজের থেকে অনেক বেশি পেসমেকার বসায়। মাসে প্রায় ২০০টি। কিন্তু একদিনে ২১ টি পেসমেকার এই প্রথম। কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান ডা. শঙ্করচন্দ্র মণ্ডল জানালেন, ১০ ফেব্রুয়ারি ২১ টি পেসমেকার বসানো হয়েছে। ৬-৭ জন ডাক্তারের একটি টিম এই অসাধ্যসাধন করেছেন। রোগীদের মধ্যে ১২ জন পুরুষ ও ৯ জন মহিলা। গড় বয়স পঞ্চাশের আশপাশে। শঙ্করবাবু জানালেন, বাইরের কোনও হাসপাতালে পেসমেকার বসাতে প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার ধাক্কা। আর এখানে সবটাই বিনামূল্যে। স্টেন্ট বসাতেও কোনও টাকা লাগছে না। একজন রোগীর শরীরে ৩টি স্টেন্ট বসানো হয়েছে, এমন নজিরও রয়েছে। এই সব কারণেই সরকারি হাসপাতালে সবাই ভিড় করছে।

শঙ্করবাবু জানালেন, ১০ ফেব্রুয়ারি শনিবার ছিল। শনিবার অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি ও অ্যাঞ্জিওগ্রাম করার চাপটা একটু কম থাকে। তাছাড়া বিভিন্ন কারনে ‘ব্যাক লগ’ ছিল। তাই ওইদিন পেসমেকার বেশি করে বসানো হয়। ১০ ফেব্রুয়ারি ক্যাথল্যাবের তিনটি ওটিতেই পেসমেকার বসিয়েছেন ডাক্তারবাবুরা।
খুশি রাজ্যের স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা ডা. দেবাশিস ভট্টাচার্য। জানিয়েছেন, গর্ব করার মতো পারফরম্যান্স। কার্ডিওলজি বিভাগের গোটা টিমকে অভিনন্দন।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of