১৩ শিশুর মৃত্যুর কারণ মোবাইল ফোন।    কাশ্মীরের মুখ‍্যমন্ত্রীকে জেহাদি বললেন কাঠুয়াকান্ডে অভিযুক্তদের আইনজীবী।    ১৪ মে বাংলায় পঞ্চায়েত নির্বাচন, ১৭ মে গণনা! অবশেষে দিন ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের।    টিকিট দেয়নি দল, তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দুবারের বিজয়ী লড়াকু প্রার্থীর।    ‘গণতন্ত্রকে বলি দিয়ে, সংবিধানকে কচু কাটা করে কী প্রয়োজন এই ভোটের?’ প্রশ্ন তুললেন প্রাক্তন বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায়।    পঞ্চায়েত ভোটে ‘বিজেপির জয়ের কলঙ্ক’ থেকে পশ্চিমবঙ্গকে মুক্ত রাখার ডাক বুদ্ধের।    চার্জ দেওয়া অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলতে গিয়ে মৃত্যু কিশোরের।     পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষনা হওয়ার খুশি মুখ্যমন্ত্রী।    একদফা ভোট নিয়ে বিজেপির কোনও আপত্তি নেই।    অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে অবস্থানে বসবে বামেরা : বিমান বসু।    নারকেলডাঙার রাজাবাজারে মিলল ২০ হাজার কেজি ভাগাড়ের মাংস, শহর জুড়ে তল্লাশি।    আপনার এ সপ্তাহ কেমন যাবে জেনে নিন আমাদের সাপ্তাহিক রাশিফল থেকে।
BREAKING NEWS:
  • ভোটের দিন ঘোষনা হল।
  • সারা রাজ্যে 14 মে একদফায় ভোট।
  • ভোটে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন বিরোধীদের।
  • পঞ্চায়েত ভোট গননা 17 মে।
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


কবি দ্বিজেন্দ্রলাল রায়  এর ১৫৫ তম জন্মদিন পালন

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১৯ জুলাই : কবি দ্বিজেন্দ্রলাল রায়  এর ১৫৫ তম জন্মদিন অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হল পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর থানার কাজলাগড়ে। ১৯ জুলাই বুধবার বেলা ১ টার সময় কাজলাগড় এর কাজল দীঘির উত্তর পাড়ে দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের স্মৃতিসৌধে মাল্যদান করেন এবং পুষ্পার্ঘ নিবেদন করেন উপস্থিত ছাত্র, শিক্ষক ও  সাধারণ মানুষ। তারপর শোভাযাত্রা সহযোগে সকলে উপস্থিত হন ভগবানপুর ১ ব্লক অফিসের সামনে। সেখানে দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের মূর্তি তে মাল্যদান করেন ভগবানপুর ১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শেখর পন্ডিত, স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ হারুন রসিদ সহ বাজকুল মনীষী চর্চা কেন্দ্র, ভুপতিনগর সাহিত্য সংস্কৃতি পর্ষদ ও বামুনচক ডি এল রায় স্মৃতি সংঘের কর্মকর্তাগন। এছাড়াও মাল্যদান ও পুষ্পার্ঘ নিবেদন করেন কাজলাগড়, মির্জাপুর ও দক্ষিণ কপ্ত্যাবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র – ছাত্রী ও শিক্ষক – শিক্ষিকাবৃন্দ। এরপর ভগবানপুর ১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাকক্ষে আলোচনা সভায় দ্বিজেন্দ্রলালের জীবন ও সাহিত্য চর্চা নিয়ে আলোচনা হয়।  ব্লক ও ভূমি সংস্কার আধিকারিক হিসেবে চাকরী করার সময়  দীর্ঘদিন ভগবানপুর এ ছিলেন দ্বিজেন্দ্রলাল রায়। কাজল দীঘির পাড়ে বকুল গাছের তলায় বসে বহু সাহিত্য রচনা করেছেন। তাঁর নাটক ও বহু গানে কাজলাগড়ের এই কাজলা দীঘি ও বকুল গাছের উল্লেখ রয়েছে। সে সব নিয়ে আলোচনা করেন বিশিষ্ট কবি , সাহিত্যিক, শিক্ষক ও  অতিথিরা। দ্বিজেন্দ্রলাল রায় স্মৃতি বিজড়িত  কাজলাগড় রাজবাড়ি ভেঙে ভেঙে পড়লেও সরকারী উদাসীনতার কারনে তা আজ ধ্বংস স্তুপে পরিনত হয়েছে। তা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শিক্ষক কবি দূর্গাপদ ভট্টাচার্য , জীবনকৃষ্ণ দাস, নিতাইচরন বেরা, মন্মথনাথ দাস, চিত্তরঞ্জন ঘোড়ই প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অশোক বর্মন ও মলয় কৃষ্ণ পাহাড়ী।

loading...

Leave a Reply

Be the First to Comment!

avatar
  Subscribe  
Notify of