বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    “ওদেরকে শাস্তি দেওয়ার সময় এসে গেছে” কংগ্রেসকে তোপ যোগগুরু রামদেব বাবার।    রাত পোহালেই রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন।     দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে হবে ভোটগ্রহণ।    “টাকার থলি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে আরএসএসের দালালরা” অভিযোগ মমতার।    সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে ছয় মাসের মধ্যেই বিধানসভা ভোট করাব বললেন আলুয়ালিয়া।    ঝাঁটা হাতে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এলাকা ছাড়া করার নিদান রাজ্যের মন্ত্রীর।    কান্দিতে অধীর গড়ে দাঁড়িয়ে কংগ্রেস ও বিজেপিকে তোপ মমতার।    নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য “ইউনিক কালার কোডিং” ব্যবস্থা।    আরও কড়া হল কমিশন, দুবের মাথায় বসল নতুন পর্যবেক্ষক।    অমিত, যোগীর জোড়া ফলায় মমতাকে ঘায়েলের চেষ্টা বিজেপির।    জয়ের প্রচারে আমতায় রাজনাথ সিং।    ঘাটালে একা কুম্ভ ভারতী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    ভোটের দিনগুলোয় কেন্দ্রীয় নেতাদের এনে কিস্তিমাত করতে কৌশল বিজেপির।


আগে তাজা শাক-সবজি পাওয়া যেত, এখন তাজা বোমা পাওয়া যায় : অনুপম

মধুকল্পিতা চৌধুরী দাস:-

সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। তাঁকে নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে সরগরম কম হয়নি। তিনি যাদবপুরের বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা। বোলপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে ২০১৪ সালে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে সাংসদ হয়েছিলেন তিনি। সমাজকর্মী হিসেবে বরাবরই পরিচিত অধ্যাপক অনুপম হাজরা।
তৃণমূলের প্রথম সারির নেতা হিসেবে বরাইবরই পরিচিত ছিলেন তিনি। তবে, ২০১৯-এর গোড়ায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন তিনি। এরপর থেকেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ করতে থাকেন তিনি। এদিন তিনি বলেন, ‘ তৃণমূলে থেকে কাজ করতে পারতাম না। আমি যখন ভোটে জয়ী হয়ে এলাম তখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে বলেছিলেন যে, সমাজকর্মী হিসেবেই আমি কাজ করতে পারবো। কিন্তু আমি জেতার পর আমাকে কিছু সাদা কাগজে সই করিয়ে নেন তৃণমূল নেতারা। সব কাজ আগে থেকেই ঠিক করাই ছিল।’
এদিন তৃণমূলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে তিনি বলেন, ‘আগে এখানে তাজা শাক-সব্জি পাওয়া যেত, এখন তাজা বোমা পাওয়া যায়।’

অনুপম হাজরার পুরো ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন ভিডিওতে

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of