বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ১৯শেই সাফ তৃণমূল : মোদী।    চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে জেলে যাবেন পার্থ : কৈলাশ বিজয়বর্গীয়    আমি বিজেপির ভয়ানক বিরোধী, কিন্তু এটা উকিলের চোখে ধরা পড়ছে মূর্তি টিএমসিপি ভেঙেছে : অরুণাভ ঘোষ।    মুখ্যমন্ত্রীর প্ররোচনায় নরসংহার শুরু করতে পারে তৃণমূল, রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি বিজেপির।    তৃণমূল বিদ্যাসাগরের মূর্তি যে ভেঙ্গেছে সেখানে পঞ্চ ধাতুর মূর্তি বানিয়ে দেব : ঘোষণা মোদীর।    সারদা নরদা নিয়ে বড় বড় কথা আর চিটফান্ডের মালিকের মাঠে সভা করছে প্রধানমন্ত্রী : মমতা।    কমিশনের নির্দেশ অমান্য ! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে গরহাজির রাজীব কুমার।    এবার লালবাজারে ডাকা হতে পারেন অমিত শাহকে!    ক্ষুব্ধ ঝাড়গ্রামের নীরব অপেক্ষা ফলাফলের জন্য।    “নারী শিক্ষার দিশারীকে ভূ-লুন্ঠিত হতে হল বাঙালীদের হাতে, এর থেকে লজ্জা কি আছে?”: ক্ষোভ বীরসিংহবাসীর।    রানাঘাটের মত নিশ্চিত আসনেও সিঁদুরে মেঘ দেখছে তৃণমূল।    মহামিছিল করে ভাটপাড়ায় প্রচার শেষ করতে চান মদন।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    নির্বাচনের আগে ভোট পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।


সিন্ডিকেট না থাকলে ‘ওর’ সংসার আর পার্টি কোনটাই চলবেনা : অরুণাভ ঘোষ

আমাদের ভারত, ১৫ মে :  ৩৪বছরের বাম শাসন বনাম সাড়ে সাত বছরের তৃণমূল শাসন! কোন সরকারের আমলে কতটা উন্নয়ন হয়েছে। ৩৪ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে রাজ্যের মসনদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসার পর ‘পরিবর্তনের ঝড় উঠবে’ বলে জানান তিনি। তবে আদেও কি এ রাজ্যে কোনো পরিবর্তন হয়েছে? মানুষ কতটাই বা উন্নয়ন দেখতে পেয়েছেন এই সরকারের আমলে।
এবিষয়ে বিশিষ্ট আইনজীবি অরুণাভ ঘোষ ক্যাম্পেন কলিং মিডিয়ার জানান, ‘বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সিঙ্গুর করতে গিয়ে শেষ হয়ে গেলেন। বিধান রায় হিন্দ মোটর এনেছিলেন এরাজ্যে। তখন মানুষ বিপ্লব বুঝতো না। চাকরি হবে এটাই বুঝতো তাঁরা। ৩৪ বছরে কিছু কাজ হয়েছিল। আর এখন হয়েছে লোটো-মারো-খাও উন্নয়ন’
উন্নয়নের প্রসঙ্গে এদিন তিনি আক্রমনাত্বক সুরে বলেন, ‘বাম সরকারের আমলে গ্রামের দিকের উন্নয়ন হয়েছিল। এই সরকার ও উন্নয়ন করেছে কিন্তু দুর্নীতির কারণে সব উন্নয়ন চাপা পরে গেছে।’
রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সুর ছড়িয়ে তিনি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চুরি চামারিতে পোস্ট গ্রাজুয়েট করিয়ে দিয়েছেন।’
এদিন সিন্ডিকেট প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারকে এক হাত নেন অরুণাভ ঘোষ।
রাজ্য সরকারের তরফে ‘সবুজসাথী’, ‘কন্যাশ্রী’, ‘১০০দিনের কাজ’-কে উন্নয়ন হিসেবে দেখানো হয়। তবে আদ কি এগুলো উন্নয়নের আওতায় পরে? নাকি প্রকল্পের আওতায় পরে?
এবিষয় নিয়ে বিশিষ্ট আইনজীবী অরুণাভ ঘোষের বক্তব্য জানতে ক্লিক করুন ভিডিওতে

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of