যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    তেলেঙ্গানায় ক্ষমতায় আসতে চন্দ্রশেখরকে সমর্থনের প্রস্তাব বিজেপির, শর্ত একটাই ত্যাগ করতে হবে ওয়াইসিকে।    অধ্যাদেশ জারি করে রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে গেরুয়া স্রোত রাজধানীতে।    “সংখ্যালঘু ভোটের জন্য হিন্দু বিদ্বেষী বাংলাদেশি ধর্মগুরুকে সভা করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য”: দিলীপ।    প্রাক্তন কেএলও লিঙ্কম্যানদের তৃণমূলে যোগদান।    কেন চোলাই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না? মন্ত্রিসভার বৈঠকে ক্ষুব্ধ মমতা।    লোকসভার আগে রাজ্যে ৭ হাজার নতুন শিক্ষক পদে নিয়োগ সরকারের।    “বিজেপির রাজ্য গুজরাট, বিহারে মদ নিষিদ্ধ তবে এই বাংলায় কেন তা হচ্ছে না “: মুকুল।    ভুয়ো কল সেন্টার খুলে বিদেশে কোটি টাকার প্রতারণা, পাকড়াও ৪ যুবক।    “শাসক দলের রক্তক্ষয়ী রাজনীতি”: নদিয়ায় বিজেপির রক্তদান শিবির।    আইনজীবী খুনের ঘটনাতেও উঠে আসছে পরকীয়া তত্ত্ব, আটক স্ত্রী।    রোগীমৃত্যুর জেরে বাঙুর হাসপাতালে ভাঙচুর, মারধর চিকিৎসকদের, আটক ৮।    বাড়ি থেকে সংগ্রহশালা, পরিবর্তন হতে চলেছে রাজ কাপুরের জন্মভিটে।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিয়ের পর প্রথম দীপিকা প্রসঙ্গে মুখ খুললেল রণবীর।


নেপালে দুর্ঘটনার কবলে বাংলাদেশি বিমান, ৫৭ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১২ মার্চ : ৭১ জন যাত্রীকে নিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ল এক বাংলাদেশি বিমান। বাংলাদেশ থেকে কাঠমান্ডু যাওয়ার। পথে ভেঙে পড়ে ওই বিমান। সোমবার দুপুরে দুর্ঘটনাটি ঘটে কাঠমান্ডুতে ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে। অবতরণ করার ঠিক আগের মুহূর্তেই ভেঙে পড়ে বিমানটি। ধ্বংস স্তূপ থেকে উদ্ধার করা হচ্ছে একাধিক মৃতদেহ।
জানা গেছে, স্থানীয় সময় দুপুর ২.২০ মিনিটে বাংলাদেশের ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানটি ৭১ জন যাত্রী নিয়ে অবতরণ করছিল নেপালের ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে।রানওয়েতে চাকাও ঠেকে গিয়েছিল। কিন্তু তারপরেই ঘটে যায় চরম বিপত্তি। বন্দর সূত্রের খবর, বিমানটির চাকা রানওয়েতে ছোঁয়ার পর তা কোনও ভাবে পিছলে যায়। তার ফলে নিয়ন্ত্রণ হারায় বিমানটি। এর পর রানওয়ে ছেড়ে পাশের মাঠে গিয়ে আছড়ে পড়ে বিমানটি। এবং দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে ওই বাংলাদেশি বিমান। দ্রুত সেখান থেকে ১৭ জনকে উদ্ধার করা হলেও বাকি যাত্রীদের ওই আগুনের গ্রাস থেকে বের করে আনা সম্ভব হয়নি। অনুমান করা হচ্ছে বাকি সকলেরই মৃত্যু হয়েছে। উদ্ধার করা যাত্রীদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপসতালে ভর্তি করা হয়। বিমানের ৭১ জন যাত্রীর মধ্যে ৩৭ জন পুরুষ, ২৭ জন মহিলা এবং ২ জন শিশু। এছাড়া ৪ জন চালক ও বিমান কর্মী ছিলেন। আগুন নিভিয়ে উদ্ধার কাজ তরান্বিত করতে নেপাল সেনার সাহায্য চেয়েছে বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই একের পর এক দেহ বার করে আনা হচ্ছে বিমানটি থেকে।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of