আর্জেন্টিনাকে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে হলে যা যা করতে হবে।    ২০১৯-এ তিনশোর বেশি আসন পাবে বিজেপি!    নির্বংশ তৃণমূলে ২০১৯ এর পর বাতি দেওয়ার লোক থাকবে না : রাহুল সিনহা।    উস্কানিমূলক মন্তব্য ! সায়ন্তন বসুর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করলো পুলিশ।    রাজ্য সরকারের নয়, কেন্দ্রের নিরাপত্তা রক্ষী নিতেই ইচ্ছুক মুকুল রায়।    আগেরবারের মত এবারেও শেষ মুহূর্তে বাতিল মুখ‍্যমন্ত্রীর চিন সফর, তবে কারণটা অদ্ভুত।     কোচবিহারে এলে দিলীপ ঘোষকে সাগরদিঘীর জলে দাঁড় করিয়ে রাখার হুঁশিয়ারি মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।    তৃণমূল কংগ্রেস যে-ভাষা বোঝে আমরাও সেই ভাষায় বোঝাব : আবদুল মান্নান।    বধূ নির্যাতনের শিকার খোদ আলিপুরের মহিলা আইনজীবী ! গ্রেফতার স্বামী।    ২০১৯ সালে তৃণমূল দল আর বাংলায় থাকবে না : মুকুল রায়।    ঘি এর নামে কি খাচ্ছেন আপনারা ? জানতে দেখুন।     আপনার এ সপ্তাহ কেমন যাবে জেনে নিন আমাদের সাপ্তাহিক রাশিফল থেকে।
BREAKING NEWS:
  • আজকের বিশ্বকাপ ফুটবলের ফলাফল
  • ৬টার খেলায় ব্রাজিল- ২কোস্টারিকা_0
  • ৯টায় নাইজেরিয়া-২ আইসল্যান্ড-০
  • রাত ১২ টায় সার্বিয়া-১সুইজারল্যান্ড-২
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


শ্লীলতাহানির অভিযোগ করায় এক গৃহবধূর কি অবস্থা হল দেখুন

আমাদের ভারত, ভাঙড়, ১০ জুন: বছর দেড়েক আগে প্রতিবেশী এক যুবকের লালসার শিকার হয়েছিলেন এক গৃহবধূ। ঘটনার পর অভিযুক্ত মুছা হক মল্লিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের করেন আক্রান্ত গৃহবধূ। ঘটনার পর থেকে পুলিশ এখনো পর্যন্ত অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেনি। উল্টে অভিযুক্ত মুছা হক মল্লিক নামে ওই যুবক প্রতিনিয়ত ওই গৃহবধূ ও তার স্বামীকে খুনের হুমকি দিচ্ছে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য। এমনকি শনিবার সকালে বাড়ি ফাঁকা থাকার সুযোগ নিয়ে ওই মহিলার উপর চড়াও হয়ে আবারও ধর্ষণের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানি করে। এর পাশাপাশি বেধড়ক মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ভাঙড়ের রাজাপুর এলাকায়। অভিযোগ এই ঘটনার পর আবার আক্রান্ত মহিলা ভাঙড় থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে পুলিশ অভিযোগ না নিয়ে উল্টে ওই মহিলাকে কটুক্তি করে। এই ঘটনার জেরে কার্যত অসহায় অবস্থায় রয়েছে ওই মহিলা ও তার পরিবারের সদস্যরা।

প্রতিবেশী যুবকের কটুক্তিতে সাড়া না দেওয়ায় তার উপর চড়াও হয়ে বেধড়ক মারধর করে শ্লীলতাহানি করে অভিযুক্ত যুবক মুছা হক মোল্লা। এই ঘটনার অভিযোগ ভাঙড় থানায় জানালে ফের বাড়িতে চড়াও হয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে ওই মহিলাকে থানা থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে অভিযুক্ত।
এই ঘটনার পর বেশ কিছুদিন সবকিছু ঠিকই ছিল। আচমকাই শনিবার সকালে ওই গৃহবধূর স্বামী যখন বাড়ি ছিলেন না সেই সময় অভিযুক্ত মুছা হক মল্লিক আবারও চড়াও হয় ওই গৃহবধূর বাড়িতে। তাকে মারধর করার পাশাপাশি ধর্ষণের চেষ্টা করে। ওই মহিলা চিৎকার করে উঠলে, আশপাশের মানুষজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। কিন্তু পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। এই ঘটনার পর রবিবার সকালে এ বিষয়ে ভাঙড় থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে বলে অভিযোগ। এমনকি থানার কর্তব্যরত অফিসাররাও ওই মহিলার উদ্দেশ্যে কটুক্তি করে বলে অভিযোগ।      

loading...

Leave a Reply

Be the First to Comment!

avatar
  Subscribe  
Notify of