খারিজ অনাস্থা, জয়ের হাসি মোদির ঠোঁটে।    ২১-র সভা থেকে মমতার অঙ্গীকার ১৯-এ ভারত দখল।    ২১ জুলাইয়ে সংখ্যালঘু উন্নয়ন নিয়ে নিশ্চুপ মমতা, ক্ষোভ মুসলিম মহলে।    মমতার প্রশ্নের উত্তরে মমতাকেই বিঁধলেন মুকুল।    “কৃষক বন্ধু প্রধানমন্ত্রী, অথচ বন্যায় কৃষকরাই মরছে”: মানস ভুঁইয়া।    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া দলীয় ঝাণ্ডার উপর তৃণমূল নেতার পা দেওয়া ছবি ভাইরাল পুরুলিয়ায়।    জেল থেকে বেরিয়ে আন্দোলন নিয়ে ফের বৈঠক অলীকের।    পর পর ১৯টি গুলি খেয়েও ভারতের পতাকা কার্গিলের পাহাড়ে উড়িয়েছিলেন ব্রিগেডিয়ার যোগেন্দ্র সিং যাদব।    আপনার দিনটি কেমন যাবে জেনে নিন আমাদের দৈনিক রাশিফল থেকে।    ২০ বছরে কাইলি বিশ্বের কমবয়সী ধনী মহিলা, কে এই যুবতী?    খোলামেলা পোশাকে উর্বশী রাউতেলা, সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন।    প্রফুল্ল কন্যার বিবাহ-সঙ্গীত অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক ধোনি সহ পরিবার।     এশিয়া জুনিয়র ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপে ৫৩ বছর পর সোনা ভারতের।
BREAKING NEWS:
  • ২৩ আগস্ট ব্রিগেডে বিজেপির সভা।
  • ১৯ আগস্ট তৃণমূল ব্রিগেড সভা করবে
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


বিজেপির বাইক র‍্যালি ঘিরে উত্তেজনা, আক্রান্ত আদালত নিযুক্ত স্পেশাল অফিসারও

আমাদের ভারত, কলকাতা, ১২ জানুয়ারি: বিজেপির বাইক র‍্যালি ঘিরে চরম উত্তেজনা, আক্রান্ত হলেন  আদালত নিযুক্ত স্পেশাল অফিসার রবিশঙ্কর দত্ত৷ কলাবাগানের কাছে তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। হামলায় তাঁর হাতে চোট লেগেছে বলে খবর। আহত হয়েছেন যুব মোর্চার বেশ কিছু কর্মী। এদের মধ্যে র‍য়েছেন যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিত সরকার। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে ইএম বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজেপির সদর দফতর থেকেই বাইক র‍্যালি হওয়ার কথা ছিল। সেখান থেকে সিমলা স্ট্রিটে স্বামীজির বাড়ি পর্যন্ত র‍্যালিতে থাকার কথা ছিল পুলিশ এসকর্ট। অন্য জায়গা থেকে র‍্যালি হলে পুলিশ এসকর্ট দেওয়া যাবে না বলে পুলিসের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। বিজেপির বাইক র‍্যালির স্পেশাল অফিসার রবিশঙ্কর দত্তকে এ কথা জানিয়েছিলেন কলকাতা পুলিশের জয়েন্ট সিপি (ক্রাইম) প্রবীণ ত্রিপাঠী। এর মধ্যেই শুক্রবার সকালে পাথুরিয়াঘাটার বিনানী ভবনে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে। ভবনের মধ্যে আটকে পড়েন বাইক র‍্যালিতে অংশ নিতে আসা বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা। সেখান থেকেই পুলিশ এসকর্ট দাবি করেন বিজেপি সমর্থকরা। কিন্তু প্রস্তুতি না থাকায় দাবিমতো সেখান থেকে বিজেপি অফিস পর্যন্ত পুলিশ এসকর্ট দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দেন প্রবীণ ত্রিপাঠী।
এর মধ্যে সকাল অাটটা নাগাদ কুলুটোলামোড়ে বিজেপি কর্মীদের উপর ফের হামলার অভিযোগ। তাতেই সকাল বেলা গোটা উত্তর কলকাতা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।
আবার জোড়াবাগানে সকাল আটটা নাগাদ যুব মোর্চার মিছিল শুরু হলে তৃণমূল কর্মীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। তাতে বিজেপির সাতজন কর্মী অাহত হন। তার মধ্যে যুবমোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিৎ সরকারের অবস্থা গুরুতর। তাকে বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। যদিও এই হামলার ঘটনা অস্বীকার করেছে রাজ্যের শাসক দল। উল্টে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ তুলে রাস্তায় নামে তৃণমূল কর্মীরা।
সকালেই দুপক্ষের সংঘর্ষ সামলাতে ছুটতে হয় পুলিশকে। তৃণমূল-বিজেপির সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে দুজন পুলিশ কর্মী অাহত হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রের খবর।
উত্তর কলকাতায় সংঘর্ষ থামতেই ফের রণক্ষের চেহারা নেয় মধ্য কলকাতা। সকাল এগারোটা নাগাদ বিজেপির রাজ্য সদর দফতর থেকে বাইক মিছিলের সূচনা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিজেপির মিছিল মহত্মা গান্ধী রোডে যেতেই ফের শুরু হয় সংঘর্ষ। শুরু হয় দুপক্ষের মধ্যে ইট বৃষ্টি। তাতে দুপক্ষের বেশ কয়েকজন কর্মী অাহত হয়। বিজেপি ও তৃণমূল কর্মীদের সংঘর্ষ অাটকাতে মৃদু লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে। এর ফলে গোটা সেন্ট্রাল এভিনিউ চত্বর স্তব্ধ হয়ে যায়। পুলিশকে পুরো রাস্তা বন্ধ করে অবস্থা নিয়ন্ত্রণে অানতে হয়।
এই সব উত্তেজনার কারণেই বাইক র‍্যালি কর্মসূচি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি নেতৃত্ব৷


ছবি: ভাঙচুর হওয়া স্পেশাল অফিসারের গাড়ি।

Leave a Reply

Be the First to Comment!

avatar
  Subscribe  
Notify of