যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    তেলেঙ্গানায় ক্ষমতায় আসতে চন্দ্রশেখরকে সমর্থনের প্রস্তাব বিজেপির, শর্ত একটাই ত্যাগ করতে হবে ওয়াইসিকে।    অধ্যাদেশ জারি করে রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে গেরুয়া স্রোত রাজধানীতে।    “সংখ্যালঘু ভোটের জন্য হিন্দু বিদ্বেষী বাংলাদেশি ধর্মগুরুকে সভা করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য”: দিলীপ।    প্রাক্তন কেএলও লিঙ্কম্যানদের তৃণমূলে যোগদান।    কেন চোলাই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না? মন্ত্রিসভার বৈঠকে ক্ষুব্ধ মমতা।    লোকসভার আগে রাজ্যে ৭ হাজার নতুন শিক্ষক পদে নিয়োগ সরকারের।    “বিজেপির রাজ্য গুজরাট, বিহারে মদ নিষিদ্ধ তবে এই বাংলায় কেন তা হচ্ছে না “: মুকুল।    ভুয়ো কল সেন্টার খুলে বিদেশে কোটি টাকার প্রতারণা, পাকড়াও ৪ যুবক।    “শাসক দলের রক্তক্ষয়ী রাজনীতি”: নদিয়ায় বিজেপির রক্তদান শিবির।    আইনজীবী খুনের ঘটনাতেও উঠে আসছে পরকীয়া তত্ত্ব, আটক স্ত্রী।    রোগীমৃত্যুর জেরে বাঙুর হাসপাতালে ভাঙচুর, মারধর চিকিৎসকদের, আটক ৮।    বাড়ি থেকে সংগ্রহশালা, পরিবর্তন হতে চলেছে রাজ কাপুরের জন্মভিটে।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিয়ের পর প্রথম দীপিকা প্রসঙ্গে মুখ খুললেল রণবীর।


ট্রেনেই জন্ম নেওয়া নবজাতকের নামকরণ হল ‘দীনদয়াল’, কিন্তু কেন জানতে পড়ুন

আমাদের ভারত ডেস্ক, পুরুলিয়া, ২৫ ডিসেম্বর:ট্রেনের মধ্যে থাকা প্রসব যন্ত্রনায় ছটপট করতে থাকা এক সন্তান সম্ভবা মহিলার পাশে দাঁড়ালেন বিজেপি নেতা তথা চিকিৎসক ডা.সুভাষ সরকার। চিকিৎসকের ডিগ্রি নেওয়ার সময় যে শপথ নিয়ে ছিলেন তিনি আজও তা পালন করে চলেছেন মানবিক ডা.সুভাষ সরকার। প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ সুভাষবাবু ট্রেনে জেনারেল কামরাতে থাকা আসন্ন প্রসবা মহিলার তুমুল গর্ভপীড়ার খবর পেয়ে ছুটে যান এবং মা ও প্রসবআসন্ন শিশুর চিকিৎসা শুরু করে দেন। খবর পেয়ে আসেন রেলের চিকিত্সকও। ডাঃ সরকার অক্লান্ত প্রচেষ্টা তে নবজাতক শিশুর ও মায়ের জীবন বাঁচান।
গত রবিবার রাত্রে পুরুলিয়ায় আগত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শ্ৰী অর্জুন রাম মেঘওয়াল কে বিদায় জানাতে অন্যান্য দলীয় নেতৃত্বদের সঙ্গে বিজেপি রাজ্য সহ সভাপতি তথা চিকিৎসক ডা.সুভাষ সরকার স্টেশনে এসেছিলেন। চক্রধরপুর-হাওড়া ট্রেনে পুরুলিয়া স্টেশনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে চাপাতে তিনিও অপেক্ষা করছিলেন। ওই ট্রেনেই ঝাড়খন্ডের কাঁড়রা স্টেশন থেকে সন্তানসম্ভাবা লক্ষী দেবী ও তাঁর স্বামী সুবোধ প্রসাদ গুপ্তা এবং তাঁদের পরিজনরা বাঁকুড়ার যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন। বরাভূম স্টেশন পার হতেই প্রসব যন্ত্রনা হতে শুরু হয় লক্ষী দেবীর। পুরুলিয়া আসতেই রেলের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হলেও ট্রেনের মধ্যেই ওই মহিলা ডা.সুভাষ সরকাররের সাহায্যে একটি শিশুর জন্ম দেন। ডা.সুভাষ সরকার এর চেষ্টায় এক প্রকার মুহূর্ষু ওই মহিলা এবং নবজাতকের প্রাণ সংশয় থেকে রক্ষা পেল বলে মনে করছেন উপস্থিত রেল কর্মী, সহযাত্রী এবং লক্ষীদেবীর পরিবার। দু হাত তুলে সাধুবাদ দেন সমস্ত স্টেশন পরিসরে থাকা লোকেরা। সাধুবাদ দেওয়া হয় রেলের চিকিত্সককেও। শিশুটির মা ডাঃ সরকারকেই শিশুটির নামকরণ করতে বলেন। ডাঃ সরকার নাম দেন, দীনদয়াল। চিকিত্সক সুভাষবাবু বলেন, ‘দীনদয়াল উপাধ্যায়ের ট্রেনেই জন্ম হয়। তাঁর আদর্শ বিজেপি এবং বহু সাধারণ মানুষ অনুসরণ করছেন। তাঁকে সন্মান জানাতে এবং স্মরণ রাখতে ওই নবজাতকের নাম দীনদয়াল দিলাম।’
ওই ঘটনার জন্যে ট্রেনটি পুরুলিয়া স্টেশন থেকে প্রায় এক ঘণ্টা দেরিতে গন্তব্যস্থলের দিকে রওনা দেয়। রাত্রেই নবজাতক ও তাঁর মাকে পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার, সেখানে চিকিৎসাধীন নবজাতক ও মা –কে দেখতে যান চিকিৎসক এবং বিজেপি রাজ্য নেতা ড়া সুভাষ সরকার। তিনি জানান ওঁরা দু’জনই সুস্থ হওয়ার পথে রয়েছেন।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of