যেকোন খবরের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatnews@gmail.com    এই বছরই দ্বিতীয় বার লালকেল্লায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে চলেছেন মোদী, জানেন কি কেন।    আদিবাসী শিশুদের নতুন জামাকাপড় দিল হিন্দু সংহতি।    ধুনুচি নাচ থেকে পেটপুরে ভুরিভোজ, পুজোয় মেতে উঠেছে আট থেকে আশি।    “লোকসভা নির্বাচনের আগে চালু হবে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো”: বাবুল সুপ্রিয়।    পুজো স্পেশাল শপিং অফার চালু করল স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া।    পুজোর মধ্যেও রাজনৈতিক সংঘর্ষ, গুড়াপে আক্রান্ত বিজেপি, বাড়ি ভাঙ্গচুর, আগুন।    ট্যাংরার গুদামে ভয়াবহ অাগুন, ঘটনাস্থলে দমকলের ৫টি ইঞ্জিন।    কল্যাণী হাইওয়েতে বেপরোয়া গতির বলি বাইক আরোহী।    ট্রেনে এবার ঝাঁকুনি ফ্রি সফর।    মেদিনীপুরে শিল্পের উন্নত পরিকাঠামো গড়তে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগ।    র‍্যাফটিং করতে গিয়ে তিস্তার জলে তলিয়ে মৃত্যু ভিন রাজ্যের মহিলার।    ভাড়াটিয়ার পরকীয়ায় বাধা দিয়ে সোনারপুরে খুন বাড়ির মালিক।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    পুজোর মরসুমে বালুরঘাটে জমে উঠেছে রমরমা জুয়ার আসর।
BREAKING NEWS:
  • আজ মহানবমী।
  • সকাল থেকেই মন্ডপে মন্ডপে ভীড়।
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


মায়ের মৃত্যুশোকেও সামাজিক কর্তব্য পালন করলেন বেড়াচাঁপার দীপক কাহার

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগনা, ৯ আগস্ট: এক অনন্য নজির সৃষ্টি করলেন উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গা থানার বেড়াচাঁপা এলাকার বাসিন্দা সমাজসেবী দীপক কাহার। তিনি অকালে প্রয়াত তাঁর মায়ের দুটি চক্ষুই দান করলেন হাসপাতালে, যে চোখ দিয়ে পৃথিবীর আলো দেখবেন আরও দুজন মানুষ।

গত ৭ আগষ্ট বেড়াচাঁপার দেবালয়ের বাসিন্দা দীপক কাহারের মা মারা যান। হঠাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ায় তাঁকে আরজিকর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই মাত্র ৪৩ বছর বয়সে তিনি মারা যান। সেই শোকের মধ্যেও দীপকবাবু দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন, তাঁর মায়ের চোখ দু’টি দান করবেন। সেই মত হাসপাতালে জানানো হয়। কিন্তু আরজিকর হাসপাতাল থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় তাদের পক্ষে কর্নিয়া সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। এর পর দীপকবাবু যোগাযোগ করেন ব্যারাকপুরের দিশা হাসপাতালের সঙ্গে। ওই বেসরকারি চক্ষু হাসপাতালই দীপকবাবুর ইচ্ছা পুরন করে। তারা দীপকবাবুর মায়ের কর্নিয়া দু’টি সংগ্রহ করে।
দীপকবাবু অনেক বছর ধরে সমাজসেবা কাজের সঙ্গে যুক্ত আছেন। তিনি আরএসএসের দেবালয় খন্ডের খন্ড সেবা প্রমুখ হিসেবে সেবা কাজ করে চলেছেন। তাঁর এই সেবাপরায়ণতার দৃষ্টান্ত আরও অনেককে চক্ষু দানে উদ্বুদ্ধ করবে বলে মনে করেন তাঁর আত্মীয়স্বজন।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of