বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ১৯শেই সাফ তৃণমূল : মোদী।    চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে জেলে যাবেন পার্থ : কৈলাশ বিজয়বর্গীয়    আমি বিজেপির ভয়ানক বিরোধী, কিন্তু এটা উকিলের চোখে ধরা পড়ছে মূর্তি টিএমসিপি ভেঙেছে : অরুণাভ ঘোষ।    মুখ্যমন্ত্রীর প্ররোচনায় নরসংহার শুরু করতে পারে তৃণমূল, রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি বিজেপির।    তৃণমূল বিদ্যাসাগরের মূর্তি যে ভেঙ্গেছে সেখানে পঞ্চ ধাতুর মূর্তি বানিয়ে দেব : ঘোষণা মোদীর।    সারদা নরদা নিয়ে বড় বড় কথা আর চিটফান্ডের মালিকের মাঠে সভা করছে প্রধানমন্ত্রী : মমতা।    কমিশনের নির্দেশ অমান্য ! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে গরহাজির রাজীব কুমার।    এবার লালবাজারে ডাকা হতে পারেন অমিত শাহকে!    ক্ষুব্ধ ঝাড়গ্রামের নীরব অপেক্ষা ফলাফলের জন্য।    “নারী শিক্ষার দিশারীকে ভূ-লুন্ঠিত হতে হল বাঙালীদের হাতে, এর থেকে লজ্জা কি আছে?”: ক্ষোভ বীরসিংহবাসীর।    রানাঘাটের মত নিশ্চিত আসনেও সিঁদুরে মেঘ দেখছে তৃণমূল।    মহামিছিল করে ভাটপাড়ায় প্রচার শেষ করতে চান মদন।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    নির্বাচনের আগে ভোট পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।


জেনে নিন সেনাদের কিছু কৌশল যা দিয়ে সহজ হবে আপনার জীবনযাত্রা

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১৪ মার্চ: অগোছালো জীবনযাত্রাতেই সাধারণত আমরা অভ্যস্ত। কোনও কিছুই গুছিয়ে করা এক প্রকার ভুলেই গেছে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলা মানুষ। এক্ষেত্রে সব থেকে বেশি শৃঙ্খলাপরায়ণ যদি কেউ থাকে তা অবশ্যই দেশের সেনারা। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিছু সেনা কৌশল যা দিয়ে কিছুটা সহজ হতে পারে আপনারও জীবনযাত্রা…

১) সাধারণত অফিসে ফর্মাল শার্ট পরাটাই নিয়ম। তাই সারাদিন সেই পোশাক যাতে ঠিকঠাক থাকে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি দিতে হয়। তবে জানেন সেনারা কি করে পোশাক ঠিক রাখেন, শার্ট গার্টার ব্যবহার করে। যা বাজারে খুঁজলেই কিনতে পারেন।

২) যেখানে আগুন ধরাবার প্রয়োজন অথচ আবহাওয়া তার প্রতিকূল সেখানে আগুন জ্বালাতে তুলোতে একটু ভেসলিন মাখিয়ে নিন দেখবেন আগুন অনেকক্ষণ পর্যন্ত জ্বলবে।

৩) চামড়ার জুতো পালিশ করে পরলে তবেই তা ভালো দেখায় কিন্তু সেনারা সব সময় সেই অনুকূল পরিস্থিতি পান না। তাই তাঁরা জুতো আগুনে সেঁকে নিয়ে কাপড় দিয়ে মুছে নেন তাতেই জুতো চমকে যায়। আপনিও প্রয়োজনে কাজে লাগাতেই পারেন এই কৌশল।

৪) গরম কাল যেন সকলকেই অতিষ্ঠ করে দেয়। ঠাণ্ডা জলের প্রয়োজনটা অত্যধিক বেড়ে যায়। বাইরের তাপমাত্রা যখন ৪০-৪৫ ডিগ্রি তখন ফ্রিজে রাখা জল পান ছাড় উপায় নেই। কিন্তু বাইরে বেরোলে? বোতলের জল আগুন হবেই। সেক্ষেত্রে মোজা ভিজিয়ে তার মধ্যে জলের বোতলটি ভরে রাখুন। দেখবেন দীর্ঘক্ষণ জল ঠাণ্ডা থাকবে। সেনা জওয়ানরা এই কৌশল গুলি প্রায়ই কাজে লাগান।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of