বিশ্বকাপে ফুটবল মাঠে বরাবর‌ই স্বপ্রতিভ ছিলেন ক্রোট প্রসিডেন্ট।    ফরাসীদের বিশ্বকাপ জয়, আনন্দে মাতল চন্দননগর।    বিশ্বকাপের মহারণে মাঠে সাক্ষী থাকলেন মহারাজ।    সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ তিনটি ট্রলার সহ ১৯ মৎস্যজীবী।    মা মাটি মানুষের সরকার সিন্ডিকেটের ইচ্ছাতেই চলছে : মোদী।    কৃষকদের উন্নতির জন্য বিজেপির অাগে কেউ এত ভাবেনি : মোদী।    মেটিয়াবুরুজে দুর্ঘটনায় মৃত বাবা-মেয়ে, প্রতিবাদে ১০টি গাড়িতে ভাঙচুর ক্ষুব্ধ জনতার।    তৃণমূলের জুলুম থেকে আর কয়েক মাসের মধ্যেই মিলবে মুক্তি : মোদী।     হাতজোড় করে স্বাগত জানালেন মমতা! ধন্যবাদ জানালেন মোদী।    মোদীর সভায় চাঁদোয়া ভেঙ্গে অাহত ৩০।    পুলিশের বাধায় প্রধানমন্ত্রীর সভায় যেতে পারলেন না অনেকে, খড়্গপুরে বিজেপি কর্মীদের হাতে আক্রান্ত পুলিশ।    বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার সিভিক ভলান্টিয়ার।    বজবজে ভাইস চেয়ারম্যান অনুগামীদের বিরুদ্ধে বিজেপি কর্মীদের মারধর,বাড়ি ভাঙ্গচুরের অভিযোগ।    আপনার দিনটি কেমন যাবে জেনে নিন আমাদের দৈনিক রাশিফল থেকে।    চিৎপুরের যাত্রাপাড়ায় বিশেষ গিমিক টেলিভিশন সিরিয়ালের জুটি।    মস্তিষ্কের পুষ্টিতে সুপ অপরিহার্য, বলছেন খাদ্য বিশেষজ্ঞরা।
BREAKING NEWS:
  • ২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবলে জয়ী ফ্রান্স।
  • ফাইনালে ফ্রান্স-৪ ক্রোয়েশিয়া-২
  • তৃতীয় স্থানের খেলায় বেলজিয়াম জয়ী
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


আষাঢ়ের আকাশে ‘Halo’-এর আর্বিভাব, অভূতপূর্ব দৃশ্যের সাক্ষী কলকাতাবাসী

শুভময় দাস, আমাদের ভারত, ১১ জুলাই:
অভূতপূর্ব দৃশ্যের সাক্ষী থাকল ত্রিলোত্তমা কলকাতা। সকালে সূর্যের চারপাশ ঘিরে রয়েছে একটি আশ্চর্য বলয়। একেবারে গোল। যেন একবারে মহাজাগতিক দৃশ্য। প্রথমবার নয়, বছর দুয়েক আগেও একই দৃশ্যের সাক্ষী হয়েছে কলকাতাবাসী।

বুধবারের কর্মব্যস্ত সকালে শহুরে মানুষগুলো আকাশের দিকে তাকিয়েই অবাক হয়ে গেছে। এমন দৃশ্যে আপ্লুত শহরবাসী। সকালে হালকা বৃষ্টির পর রোদ উঠতেই দেখা গেল সেই মহাজাগতিক দৃশ্য। সোশ্যাল মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে সেই ছবি। কেউ সানগ্লাস পরে সূর্যের দিকে তাকালেই চোখে পড়ছে সেই অদ্ভূত দৃশ্য। মোবাইল হাতে অনেককেই দেখা যাচ্ছে রাস্তায়।

কী এই রামধনু বলয়?
যাকে বিজ্ঞানীরা আক্ষা দিচ্ছেন ‘হ্যালো’ (HALO) বলে। এটাও অনেকটা রামধনু বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে। সাধারণত বরফ আবৃত জায়গায় এ ধরনের দৃশ্য দেখা যায়। বরফের ক্রিস্টালের উপর প্রতিফলিত হয়ে সূর্যের এই বলয় তৈরি হয়। জ্যোতির্বিদরা বলছেন বর্ষার আগে বা পরে এই ধরনের রামধনু বলয় দেখা সম্ভব।
উচ্চতর ট্রপোস্ফিয়ারে এই বলয় সাধারনত তৈরি হয়ে থাকে। বরফের গায়ে ধাক্কা খেয়ে আলো রামধনুর রঙে ভেঙে ছড়িয়ে পড়ে মহাকাশের দিকে। আলোগুলি এক এক অণুর মত হয়। তবে বরফ ছাড়াও জলের গায়ে প্রতিফলিত হয়েও এই বৃত্ত তৈরি হতে পারে।
অবশ্য এর আগে নেপালের আকাশেও এই বৃত্ত চোখে পড়েছিল বিশ্ববাসীর। তবে এখন পর্যন্ত নাসার কোন প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

loading...

Leave a Reply

Be the First to Comment!

avatar
  Subscribe  
Notify of