যেকোন খবরের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatnews@gmail.com    ফ্রিতে ৫০ লাখ স্মার্টফোন আর জিও সিম।    ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রীর অশালীন ছবি প্রচার,  গ্রেফতার শালবনীর যুবক।    “তৃণমূল বিরোধী শূন্য পঞ্চায়েত গড়তে চাইছে বলেই এত গণ্ডগোল”, বললেন দিলীপ ঘোষ।    আমডাঙা কাণ্ডে রাজস্থান থেকে গ্রেফতার সিপিএম নেতা জাকির।    এবার ভেঙে খসে পড়তে শুরু করল জ্বলন্ত বাগরি মার্কেট।    বীরভূমে আদিবাসী ছাত্রীর ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষকের দ্রুত বিচার চাইলেন লকেট।    তিন সপ্তাহের মধ্যে এসএসসির সম্পূর্ণ মেধাতালিকা প্রকাশের নির্দেশ হাইকোর্টের।    সারদা মামলায় বিধাননগরের প্রাক্তন গোয়েন্দা কর্তা অর্ণব ঘোষকে তলব সিবিআইয়ের।    বাগরি মার্কেটের সিঁড়ি, বাথরুমও ব্যবসায় লিজ, জার্মানি থেকেও ক্ষোভ মুখ্যমন্ত্রীর।    বালুরঘাটে কাজের দিনেও সরকারি অফিসে মদ-মাংসের আসর, আতঙ্কিত দপ্তরের এক মহিলা কর্মী।    হিলিতে ভোগের খিচুড়ির ভাগাভাগি নিয়ে সিভিক ভলান্টিয়ারকে বেধড়ক মার এনভিএফের।    কুলতলিতে রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, প্রহৃত চিকিৎসক।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    দেড়বছর পর জামিন পেলেন উদ্বাস্তু আন্দোলনের নেতা সুবোধ বিশ্বাস।    ডিভোর্স না দেওয়ায় স্ত্রীকে খুনের চেষ্টা চিকিৎসক স্বামীর, গ্রেফতার অভিযুক্ত।    গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে পাহাড়ে ফের পোস্টার, সিঁদুরে মেঘ দেখছে পাহাড়বাসী।    দিলীপ ঘোষের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজ্যজুড়ে পথ অবরোধ কর্মসূচি বিজেপির।    হোয়াটসঅ্যাপে খুব গুরুত্বপূর্ণ তিনটি পরিবর্তন হতে চলেছে।    এবার ভাঁজ করে রাখতে পারবেন আপনার স্মার্টফোন।
BREAKING NEWS:
  • বিজেপি রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ
  • আক্রান্ত। গাড়ি ভাঙচুর।
  • কর্মী সহ বিজেপি ছাড়লেন লক্ষ্মণ শেঠ
  • কলকাতার বাগরি মার্কেটে আগুন
  • দীর্ঘ সময় পরও জ্বলছে আগুন
  • দমকলের ৩০টি ইঞ্জিন আগুন নেভাচ্ছে
{"effect":"slide-h","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}


বাংলাদেশে ওরা বারবার আক্রান্ত, ওদের কথা শোনার কেউ নেই

২৫ নভেম্বর, দিল্লি:

দিবাকর কুন্ডু:

বারেবারে আক্রান্ত হচ্ছে বাংলাদেশের হিন্দুরা। জনসংখ্যার নিরিখে দেখলে ১৯৭১- এ হিন্দু জনসংখ্যা ছিল ২৩.৫ শতাংশ, সেখানে আজ ২০১৭ তে নেমে প্রায় ৮ শতাংশ হয়েছে। কারণ খুঁজে দেখতে গেলে তার তালিকা বেশ লম্বা। জোরপূর্বক সম্পত্তি দখল থেকে শুরু করে ভয় দেখানো, ধর্মীয় পরিবর্তন, ধর্ষণ, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো, হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত আরও অনেক কিছুই আছে তালিকায়। বারেবারে আক্রান্ত হচ্ছে সে দেশের সংখ্যালঘুরা। ওরা  বিচারের অপেক্ষায় দিন গুনে চলেছে।

২০১৩ সালে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার বনগ্রাম বাজারের ধর্মীয় অবমাননার মিথ্যা অপপ্রচার করে ৫০-৬০ টি হিন্দু পরিবারের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ এবং মন্দির ভাঙচুর, সম্পত্তি লুটপাটের ঘটনা ঘটেছিল। গত বছরের ব্রাহ্মণবেড়িয়ার ঘটনা এখনও সবার মনে আছে। যেখানে তিন শতাধিক হিন্দু ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এমন অনেক ঘটনা ক্রমাগত ঘটে চলেছে কিন্তু কোনও পরিবর্তন হয়নি।

পুনরায় গত ১০ নভেম্বর ঘটে গেল সেই একই ঘটনা। ফেসবুকের একটা মিথ্যা অপপ্রচার ঘিরে হঠাৎ আক্রান্ত হল রংপুরের পাগলাপীর গ্রামের হিন্দু পরিবার সমূহ। লুটপাট এবং আগুনে জ্বালিয়ে হল হিন্দুদের সম্পত্তি। ক্ষতিগ্রস্তদের কেউ কেউ বলছেন এদেশে হিন্দুদের জায়গা নেই, দেশটাকে হিন্দুশূন্য করার চক্রান্ত চলছে। এই অভিযোগ কোনও ভাবেই মিথ্যা নয়। তথ্য বলছে, যেভাবে হিন্দুদের সংখ্যা কমে আসছে তাতে প্রতিদিন গড়ে ৬০০-৬৫০ হিন্দু পরিবার কমে চলেছে। এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতে হয়ত এটাই অনিবার্য হবে।

ওরা সত্যিই অসহায়। ওদের ওপরে আক্রমণের জন্য প্রতিবাদ বা আন্দোলন করার কেউ নেই। তাই ওরা বিচারের আশায় বসে থাকে কিন্তু পায় না। ওদের সম্পত্তি লুট হলেও বা প্রতিমা বা মন্দির ভেঙে দেওয়া হলেও ওদের নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করতে হয়। বছরের পর বছর ধরে হিন্দু নির্যাতনের ঘটনা বেড়েই চলেছে। আজ রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সবার প্রাণ কাঁদে কিন্তু এই অসহায়, পীড়িত হিন্দুদের জন্য সবাই নীরব। ধর্মের দোহাই দিয়ে আমাদের মানবিকতার বোধটুকু হারিয়ে যাচ্ছে না তো? প্রশ্নটা রয়ে গেল!

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of