বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ১৯শেই সাফ তৃণমূল : মোদী।    চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে জেলে যাবেন পার্থ : কৈলাশ বিজয়বর্গীয়    আমি বিজেপির ভয়ানক বিরোধী, কিন্তু এটা উকিলের চোখে ধরা পড়ছে মূর্তি টিএমসিপি ভেঙেছে : অরুণাভ ঘোষ।    মুখ্যমন্ত্রীর প্ররোচনায় নরসংহার শুরু করতে পারে তৃণমূল, রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি বিজেপির।    তৃণমূল বিদ্যাসাগরের মূর্তি যে ভেঙ্গেছে সেখানে পঞ্চ ধাতুর মূর্তি বানিয়ে দেব : ঘোষণা মোদীর।    সারদা নরদা নিয়ে বড় বড় কথা আর চিটফান্ডের মালিকের মাঠে সভা করছে প্রধানমন্ত্রী : মমতা।    কমিশনের নির্দেশ অমান্য ! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে গরহাজির রাজীব কুমার।    এবার লালবাজারে ডাকা হতে পারেন অমিত শাহকে!    ক্ষুব্ধ ঝাড়গ্রামের নীরব অপেক্ষা ফলাফলের জন্য।    “নারী শিক্ষার দিশারীকে ভূ-লুন্ঠিত হতে হল বাঙালীদের হাতে, এর থেকে লজ্জা কি আছে?”: ক্ষোভ বীরসিংহবাসীর।    রানাঘাটের মত নিশ্চিত আসনেও সিঁদুরে মেঘ দেখছে তৃণমূল।    মহামিছিল করে ভাটপাড়ায় প্রচার শেষ করতে চান মদন।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    নির্বাচনের আগে ভোট পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।


গোপন সিসিটিভিতে স্ত্রীর পরকীয়া দেখে ফেলায়, স্বামীকেই লোপাট করে দিল স্ত্রী!

আমাদের ভারত, শিলিগুড়ি, ১০ মে: প্রেমিকের সঙ্গে পরিকল্পনা করে স্বামীকে খুন করে দেহ লোপাটের অভিযোগ উঠল স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের মাটিগাড়া থানার মেডিকেল মোড় এলাকায়। এই ঘটনায় ওই গৃহবধূ ও তার প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মাটিগাড়া থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন পেশায় ওষুধ ব্যবসায়ী পিন্টু ভৌমিক।পিন্টুর পরিবারের লোকেদের সন্দেহ হওয়ায় তারা মাটিগাড়া থানায় অভিযোগ জানায়। পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে , স্বামীর বন্ধুর সঙ্গে বিবাহ বহিভূর্ত সম্পর্ক ছিল ওই মহিলার। স্ত্রীর ওপর সন্দেহ করে পিন্টু বাড়িতে একটি সিসিটিভি ক্যামেরা লাগান। চলতি সপ্তাহে পিন্টুর অবর্তমানে পিন্টুর স্ত্রীর প্রেমিক বাড়িতে ঢুকলে বিষয়টি নজরে আসে পিন্টুর। সঙ্গে সঙ্গে পিন্টু বাড়িতে এসে স্ত্রীর প্রেমিকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। এরপর শুরু হয় বচসা। এরই মাঝে পিন্টুর স্ত্রী পিন্টুর মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে। শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের মাটিগাড়া থানার পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় পিন্টুর। এরপরই দেহ লোপাট করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

সেদিনই পিন্টুর স্ত্রী থানায় গিয়ে স্বামী নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ জানায়। তবে পিন্টুর পরিবারের লোকেদের সন্দেহ হওয়ায় তাঁরা পিন্টুর স্ত্রীর নামে মাটিগাড়া থানায় পালটা অভিযোগ দায়ের করে। এরপরই পুলিশ পিন্টুর স্ত্রী ও তার প্রেমিককে গ্রেফতার করে গোটা ঘটনাটি জানতে পারে। পিন্টু স্ত্রী এবং তার প্রেমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে মৃতদেহ কোথায় লুকিয়ে রাখা হয়েছে তা বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে মাটিগাড়া থানার পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদের সময় মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছে দুজনেই। তাই মৃতদেহের এখনও সন্ধান মেলেনি। মাটিগাড়া থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of