যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    তেলেঙ্গানায় ক্ষমতায় আসতে চন্দ্রশেখরকে সমর্থনের প্রস্তাব বিজেপির, শর্ত একটাই ত্যাগ করতে হবে ওয়াইসিকে।    অধ্যাদেশ জারি করে রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে গেরুয়া স্রোত রাজধানীতে।    “সংখ্যালঘু ভোটের জন্য হিন্দু বিদ্বেষী বাংলাদেশি ধর্মগুরুকে সভা করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য”: দিলীপ।    প্রাক্তন কেএলও লিঙ্কম্যানদের তৃণমূলে যোগদান।    কেন চোলাই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না? মন্ত্রিসভার বৈঠকে ক্ষুব্ধ মমতা।    লোকসভার আগে রাজ্যে ৭ হাজার নতুন শিক্ষক পদে নিয়োগ সরকারের।    “বিজেপির রাজ্য গুজরাট, বিহারে মদ নিষিদ্ধ তবে এই বাংলায় কেন তা হচ্ছে না “: মুকুল।    ভুয়ো কল সেন্টার খুলে বিদেশে কোটি টাকার প্রতারণা, পাকড়াও ৪ যুবক।    “শাসক দলের রক্তক্ষয়ী রাজনীতি”: নদিয়ায় বিজেপির রক্তদান শিবির।    আইনজীবী খুনের ঘটনাতেও উঠে আসছে পরকীয়া তত্ত্ব, আটক স্ত্রী।    রোগীমৃত্যুর জেরে বাঙুর হাসপাতালে ভাঙচুর, মারধর চিকিৎসকদের, আটক ৮।    বাড়ি থেকে সংগ্রহশালা, পরিবর্তন হতে চলেছে রাজ কাপুরের জন্মভিটে।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিয়ের পর প্রথম দীপিকা প্রসঙ্গে মুখ খুললেল রণবীর।


ভাঙড়ে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের জের, প্রার্থীকে মারতে এসে দুষ্কৃতিরা মারল অন্য মহিলাকে

আমাদের ভারত, ভাঙড়, ৯ এপ্রিল: তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে মাঝে মধ্যেই অশান্তি ছড়াচ্ছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ে। কাইজার আহমেদ অনুগামী অষ্টমী মণ্ডল এবার তৃণমূল কংগ্রেসের গ্রামসভার প্রার্থী হওয়ায় রেজ্জাক মোল্লার অনুগামীরা রবিবার রাতে তাঁকে মারতে এসেছিল। কিন্তু অন্ধকারে বুঝতে না পেরে দুষ্কৃতীরা অষ্টমী মণ্ডলের পরিবর্তে রুনু মণ্ডল নামে এক মহিলাকে মারধর করে। পরে ভুল বুঝতে পেরে পালিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ের ঘুনিমেঘি এলাকায়। ঘটনায় আহত মহিলাকে উদ্ধার করে রাতেই স্থানীয় নলমুড়ি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান স্থানীয়রা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়।

স্থানীয় সুত্রে খবর গত কয়েকমাস ধরেই ভাঙড়ের তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদের আনুগামীদের সাথে রেজ্জাক মোল্লা অনুগামিদের বিরোধ লেগেই রয়েছে। ঘটনার জেরে মাঝে মধ্যেই দুইপক্ষ একে অপরের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ছে। এই ঘুনিমেঘি এলাকায় গ্রামসভায় এবারে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হয়েছেন অষ্টমী মণ্ডল নামে কাইজার আহমেদ অনুগামী এক মহিলা। সেই কারনেই রাগে ও ক্ষোভে ফুঁসছিল রেজ্জাক অনুগামীরা। বদলা নিতে তাই প্রার্থীকেই মারধরের পরিকল্পনা করেছিল তারা। রবিবার রাত আটটা নাগাদ প্রার্থী অষ্টমী মন্ডল স্থানীয় একটি দোকানে দরকারে এসেছিলেন। অভিযোগ, সেই সময় এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়ে দোকানে দাঁড়িয়ে থাকা আষ্টমী মন্ডলের উপর হামলা করতে যায় বাইকে করে আসা কয়েকজন দুষ্কৃতি। কিন্তু অন্ধকারে বুঝতে না পেরে অষ্টমী মণ্ডলের পরিবর্তে তারা মেরে বসে দোকানে দাঁড়িয়ে থাকা আরএক মহিলা রুনু মণ্ডলকে।
কিছুক্ষণের মধ্যেই অবশ্য নিজেদের সেই ভুল বুঝতে পেরে এলাকা থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। যদিও এই অভিযোগের কথা অস্বীকার করেছেন রেজ্জাক অনুগামী স্থানীয় তৃণমূল নেতারা। এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই ভাঙড় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ভাঙড় থানার পুলিশ।     

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of