যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ৩ হাজারের বেশি অ্যান্টি ট্যাংক মিসাইল কিনতে পারে ভারত ফ্রান্স থেকে।     কংগ্রেসের ইস্তেহারে রামমন্দির যুক্ত হলে আমরা তাদের সমর্থনের কথা ভাবতে পারি : ভিএইচপি।    বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেসের প্রার্থী হতে পারেন করিনা কাপুর।    মমতা নয় রাহুলকেই নেতা দেখতে চান তারা, ব্রিগেডের পরেই জানালেন তেজস্বী, স্টালিনরা।     একসময় কাগজ কুড়াতেন আজ চণ্ডীগড়ের মেয়র এই বিজেপি নেতা।    ব্রিগেডে খরচের উসুল তুলতে ব্যর্থ তৃণমূল, সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদিকে হারিয়েই সন্তুষ্ট।    মালদায় অমিত শাহ-যোগীর সভা সফল করার জন্য বিজেপির তিন প্ল্যান।    ব্রিগেডের সভার বদলে আসানসোলে সভা করবে প্রধানমন্ত্রী, জানালেন দিলীপ ঘোষ।    জম্মু-কাশ্মীরে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বিজেপি , দাবি রাম মাধবের।    জয়নগরে অমিত শাহের সভার আগেই রাস্তাঘাট তৃণমূলের দখলে।    লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে সফরে জিটিএর প্রতি মুক্তহস্ত মমতা।    ডুয়ার্সে চিতাবাঘের চামড়া সহ আটক পাঁচ চোরাচালানকারী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিজেপি নেতার মাতৃবিয়োগে সমবেদনা জানাতে দুর্গাপুরে রাজ্যপাল।


২ মে ও দুই ঠাকুরের প্রথম দেখা

অশোক সেনগুপ্ত,কলকাতা,১ মে:কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন ঐতিহাসিক বাড়িতে নানা সময়ে গিয়েছি। খোঁজ করেছি সংশ্লিষ্ট ঐতিহ্যের। কিন্তু এপিসি রোডের এই বাড়িতে যাওয়ার সুযোগ হল আজ ১ মে। ১৮৮৩ সালের ২ মে এই বাড়িতেই দেখা হরেছিল দুই ঠাকুরের। মানে, ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের।
প্রতি বছর ১ ও ২ মে ওঁরা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন দুই ঠাকুরের সেই সাক্ষাৎপর্ব। ওঁরা মানে, ’শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ ভক্ত পরিষদ’। কথা হল পরিষদের সচিব আইনজীবী যামিনীরঞ্জন ঘোষ এবং মিত্রবাড়ির দুই বর্ষীয়ান শরিক প্রণব কুমার ও মানব কুমার মিত্র সঙ্গে।
প্রণববাবু জানালেন, আমার ঠাকুর্দা যজ্ঞনাথ মিত্রর সঙ্গে দেখা করতে এই বাড়িতে এসেছিলেন রবীন্দ্রনাথ। সেকালের অন্যতম প্রধান ব্রাহ্ম সেবক এবং সমাজসংস্কারক কাশীশ্বর মিত্রের দুই পুত্রের অন্যতম ছিলেন যজ্ঞনাথ। এই গোটা এলাকা ছিল গোবিন্দরাম মিত্রদের বাগানবাড়ি। তাই জায়গাটা চিহ্ণিত ছিল নন্দনকানন বলে।

শ্যামবাজার মোড়ের ঢিলছোঁড়া দূরত্বের এই বাড়ি থেকে নবাব সিরাজদৌল্লা রওনা হয়েছিলেন জাহাজঘাটায়। এ সব কথা এখন চাপা পড়ে গিয়েছে বিস্মৃতির ধারাপাতে। মিত্রবাবু জানান, কুমোরটুলির গোবিন্দরাম মিত্র ছিলেন আমাদের পূর্বপুরুষ।
যাই হোক, শ্রীরামকৃষ্ণের স্মরণে প্রতি শুক্রবার এখনও এই মিত্রবাড়িতে বসে ধর্মীয় আলোচনার আসর। লোক লস্কর ও অন্য কিছু অসুবিধায় বার্ষিক স্মরণসভাটা দু‘দিনের বদলে নেমে এসেছে এক দিনে। তা সত্বেও ২ মে-র উদযাপনে ব্যস্ত ভক্ত পরিষদ। ছবিতে ওঁদের আলোচনা, যজ্ঞনাথ মিত্রের ফটো, ঠাকুরঘর প্রভৃতি।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of