বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    “ওদেরকে শাস্তি দেওয়ার সময় এসে গেছে” কংগ্রেসকে তোপ যোগগুরু রামদেব বাবার।    রাত পোহালেই রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন।     দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে হবে ভোটগ্রহণ।    “টাকার থলি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে আরএসএসের দালালরা” অভিযোগ মমতার।    সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে ছয় মাসের মধ্যেই বিধানসভা ভোট করাব বললেন আলুয়ালিয়া।    ঝাঁটা হাতে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এলাকা ছাড়া করার নিদান রাজ্যের মন্ত্রীর।    কান্দিতে অধীর গড়ে দাঁড়িয়ে কংগ্রেস ও বিজেপিকে তোপ মমতার।    নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য “ইউনিক কালার কোডিং” ব্যবস্থা।    আরও কড়া হল কমিশন, দুবের মাথায় বসল নতুন পর্যবেক্ষক।    অমিত, যোগীর জোড়া ফলায় মমতাকে ঘায়েলের চেষ্টা বিজেপির।    জয়ের প্রচারে আমতায় রাজনাথ সিং।    ঘাটালে একা কুম্ভ ভারতী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    ভোটের দিনগুলোয় কেন্দ্রীয় নেতাদের এনে কিস্তিমাত করতে কৌশল বিজেপির।


২ মে ও দুই ঠাকুরের প্রথম দেখা

অশোক সেনগুপ্ত,কলকাতা,১ মে:কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন ঐতিহাসিক বাড়িতে নানা সময়ে গিয়েছি। খোঁজ করেছি সংশ্লিষ্ট ঐতিহ্যের। কিন্তু এপিসি রোডের এই বাড়িতে যাওয়ার সুযোগ হল আজ ১ মে। ১৮৮৩ সালের ২ মে এই বাড়িতেই দেখা হরেছিল দুই ঠাকুরের। মানে, ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের।
প্রতি বছর ১ ও ২ মে ওঁরা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন দুই ঠাকুরের সেই সাক্ষাৎপর্ব। ওঁরা মানে, ’শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ ভক্ত পরিষদ’। কথা হল পরিষদের সচিব আইনজীবী যামিনীরঞ্জন ঘোষ এবং মিত্রবাড়ির দুই বর্ষীয়ান শরিক প্রণব কুমার ও মানব কুমার মিত্র সঙ্গে।
প্রণববাবু জানালেন, আমার ঠাকুর্দা যজ্ঞনাথ মিত্রর সঙ্গে দেখা করতে এই বাড়িতে এসেছিলেন রবীন্দ্রনাথ। সেকালের অন্যতম প্রধান ব্রাহ্ম সেবক এবং সমাজসংস্কারক কাশীশ্বর মিত্রের দুই পুত্রের অন্যতম ছিলেন যজ্ঞনাথ। এই গোটা এলাকা ছিল গোবিন্দরাম মিত্রদের বাগানবাড়ি। তাই জায়গাটা চিহ্ণিত ছিল নন্দনকানন বলে।

শ্যামবাজার মোড়ের ঢিলছোঁড়া দূরত্বের এই বাড়ি থেকে নবাব সিরাজদৌল্লা রওনা হয়েছিলেন জাহাজঘাটায়। এ সব কথা এখন চাপা পড়ে গিয়েছে বিস্মৃতির ধারাপাতে। মিত্রবাবু জানান, কুমোরটুলির গোবিন্দরাম মিত্র ছিলেন আমাদের পূর্বপুরুষ।
যাই হোক, শ্রীরামকৃষ্ণের স্মরণে প্রতি শুক্রবার এখনও এই মিত্রবাড়িতে বসে ধর্মীয় আলোচনার আসর। লোক লস্কর ও অন্য কিছু অসুবিধায় বার্ষিক স্মরণসভাটা দু‘দিনের বদলে নেমে এসেছে এক দিনে। তা সত্বেও ২ মে-র উদযাপনে ব্যস্ত ভক্ত পরিষদ। ছবিতে ওঁদের আলোচনা, যজ্ঞনাথ মিত্রের ফটো, ঠাকুরঘর প্রভৃতি।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of