বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    “ওদেরকে শাস্তি দেওয়ার সময় এসে গেছে” কংগ্রেসকে তোপ যোগগুরু রামদেব বাবার।    রাত পোহালেই রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন।     দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে হবে ভোটগ্রহণ।    “টাকার থলি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে আরএসএসের দালালরা” অভিযোগ মমতার।    সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে ছয় মাসের মধ্যেই বিধানসভা ভোট করাব বললেন আলুয়ালিয়া।    ঝাঁটা হাতে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এলাকা ছাড়া করার নিদান রাজ্যের মন্ত্রীর।    কান্দিতে অধীর গড়ে দাঁড়িয়ে কংগ্রেস ও বিজেপিকে তোপ মমতার।    নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য “ইউনিক কালার কোডিং” ব্যবস্থা।    আরও কড়া হল কমিশন, দুবের মাথায় বসল নতুন পর্যবেক্ষক।    অমিত, যোগীর জোড়া ফলায় মমতাকে ঘায়েলের চেষ্টা বিজেপির।    জয়ের প্রচারে আমতায় রাজনাথ সিং।    ঘাটালে একা কুম্ভ ভারতী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    ভোটের দিনগুলোয় কেন্দ্রীয় নেতাদের এনে কিস্তিমাত করতে কৌশল বিজেপির।


২০১৯ এ বিজেপির পক্ষে আরও বড় ঝড় উঠবে, সেই ভয়ে বিরোধিরা একজোট হয়েছে, মোদী

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১৪ সেপ্টেম্বর: ২০১৩-১৪র তুলনায় ২০১৯এ অনেক বড় ঝড় উঠবে বিজেপির অনুকূলে। সেই ভয়টাই আগে থেকে টের পেয়েছে বিরোধিরা। সেই জন্যই তারা একজোট হবার চেষ্টা করে যাচ্ছে। এভাবেই বিরোধীদের গুরুত্বহীন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আর মনোবল বাড়ালেন দলের কর্মীদের।

বৃহস্পতিবার নমো অ‍্যাপের মাধ‍্যমে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানে তিনি বলেন বিরোধিরা মনে করছে ২০১৩-১৪ র তুলনায় অনেক বড় ঝড় ব‌ইতে চলেছে বিজেপির অনুকূলে। আর সেই ভয়েতেই বিরোধী দল গুলো একজোট হবার চেষ্টা চালাচ্ছে। কারণ তারা মনে করছেন বিজেপির ঝড়ে একক ভাবে তাদের অস্তিত্ব বিপন্ন‌ হতে পারে। সেই কারণেই বিরোধিরা একের পর এক ইস‍্যু তুলে আসলে নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার চেষ্টা চালাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন বিরোধিরা যতই চেষ্টা করুক ভারতবাসী সব বিষয় সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। গত চার বছরে কংগ্রেস সহ বিরোধী‌ দলগুলোর মুখোশ খুলে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন ২০১৪তে জনগণ তাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়ে তাদের ক্ষমতাচ্যুত করেছিল। কিন্তু বিরোধীদলের ভূমিকা পালন করতেও তারা সম্পূর্ণ ভাবে ব‍্যর্থ।

নরেন্দ্র মোদী বলেন তার সরকার জাতপাত নির্বিশেষে সবটা সাত সবটা বিকাশ মডেলের কার্যক্ষেত্রে রূপান্তর ঘটাতে পেরেছে। তাইতো কয়লা ও টেলিকমের মত বড় ক্ষেত্রকে দুর্নৈ কবল থেকে মুক্ত করে উন্নয়নের দিকে যাত্রা করাতে সক্ষম হয়েছে।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of