বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    “ওদেরকে শাস্তি দেওয়ার সময় এসে গেছে” কংগ্রেসকে তোপ যোগগুরু রামদেব বাবার।    রাত পোহালেই রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন।     দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে হবে ভোটগ্রহণ।    “টাকার থলি নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে আরএসএসের দালালরা” অভিযোগ মমতার।    সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে ছয় মাসের মধ্যেই বিধানসভা ভোট করাব বললেন আলুয়ালিয়া।    ঝাঁটা হাতে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এলাকা ছাড়া করার নিদান রাজ্যের মন্ত্রীর।    কান্দিতে অধীর গড়ে দাঁড়িয়ে কংগ্রেস ও বিজেপিকে তোপ মমতার।    নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য “ইউনিক কালার কোডিং” ব্যবস্থা।    আরও কড়া হল কমিশন, দুবের মাথায় বসল নতুন পর্যবেক্ষক।    অমিত, যোগীর জোড়া ফলায় মমতাকে ঘায়েলের চেষ্টা বিজেপির।    জয়ের প্রচারে আমতায় রাজনাথ সিং।    ঘাটালে একা কুম্ভ ভারতী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    ভোটের দিনগুলোয় কেন্দ্রীয় নেতাদের এনে কিস্তিমাত করতে কৌশল বিজেপির।


বিজেপি নয় এবার হিন্দুত্বের তাশ খেলছে কংগ্রেস, রাম-পথ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১২ সেপ্টেম্বর: গোশালার পর এবার এবার রাম-পথ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিল কংগ্রেস। রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন তাহলে কি কংগ্রেসের নরম হিন্দুত্ব উগ্রতার পথে পা বাড়ালো। হিন্দু ভোটব্যাঙ্ক নিজেদের দিকে ফেরাতে মধ‍্যপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনের আগে এইভাবে একের পর এক হিন্দুত্বের তাশ খেলছে কংগ্রেস বলে ধারণা রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

রাজ‍্যে ক্ষমতায় এলে গোশালা নির্মাণের প্রতিশ্রুতি আগেই দিয়েছিল কংগ্রেস। তা নিয়ে সমালোচনাও হয়েছে যথেষ্ট। এবার ক্ষমতায় এলে রাম-পথ নির্মাণের প্রতিশ্রুতিও দিল কংগ্রেস। কথিত আছে রামের ১৪ বছর বনবাসের ১১ বছর মধ‍্যপ্রদেশের বিভিন্ন জঙ্গলে ঘুরে কাটিয়েছিলেন রঘুবীর। সেই সব জায়গা গুলিকে একটি রাস্তার মাধ‍্যমে যুক্ত করেই তৈরি করা হবে রামপথ। কংগ্রেস বরিষ্ঠ নেতা দিগ্বিজয়ী সিং শুধু রাম-পথ নয় একসঙ্গে নর্মদা পরিক্রমা পথও নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

২০০৩ সালে বিজেপি ক্ষমতায় আসার আগে এই রাম- পথ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সামনা,পান্না, শাদল জব্বলপুর, বিদিশা জেলা জুড়ে রাম গমন পথ নির্মাণের প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়েছিল ২০০৭ সালে বিজেপির তরফে। সেটা এখনও কার্যকর হয়নি। তাই কংগ্রেস নেতাও দাবি, ক্ষমতায় এসে বিজেপি প্রতিশ্রুতি পালন না করলেও তারা রাম-পথ নির্মাণের কাজ অবশ্যই করবেন যদি ক্ষমতায় আসেন।

বেশ কিছুদিন ধরেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে কংগ্রেস নেতৃত্ব হিন্দু ধর্মের নানা কর্মকান্ডের সঙ্গে নিজেদের জড়িয়েছেন। রাহুল গান্ধী গিয়েছিলেন মানস সরোবরে। মধ‍্যপ্রদেশে গোশালা নির্মাণের প্রতিশ্রুতি। এরপর আবার রাম- পথ। তাহলে কি বিজেপিকে অনুসরণ করে তাদের নীতি হাতিয়ে নিতেই হিন্দুত্বের তাশ খেলছে কংগ্রেস? প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলের। এ প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয়ী সিং এর দাবি উগ্র হিন্দুত্ববাদ আর ধর্মের কাজ করা দুটি পৃথক জিনিস।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of