যেকোন রকম বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ৩ হাজারের বেশি অ্যান্টি ট্যাংক মিসাইল কিনতে পারে ভারত ফ্রান্স থেকে।     কংগ্রেসের ইস্তেহারে রামমন্দির যুক্ত হলে আমরা তাদের সমর্থনের কথা ভাবতে পারি : ভিএইচপি।    বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেসের প্রার্থী হতে পারেন করিনা কাপুর।    মমতা নয় রাহুলকেই নেতা দেখতে চান তারা, ব্রিগেডের পরেই জানালেন তেজস্বী, স্টালিনরা।     একসময় কাগজ কুড়াতেন আজ চণ্ডীগড়ের মেয়র এই বিজেপি নেতা।    ব্রিগেডে খরচের উসুল তুলতে ব্যর্থ তৃণমূল, সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদিকে হারিয়েই সন্তুষ্ট।    মালদায় অমিত শাহ-যোগীর সভা সফল করার জন্য বিজেপির তিন প্ল্যান।    ব্রিগেডের সভার বদলে আসানসোলে সভা করবে প্রধানমন্ত্রী, জানালেন দিলীপ ঘোষ।    জম্মু-কাশ্মীরে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বিজেপি , দাবি রাম মাধবের।    জয়নগরে অমিত শাহের সভার আগেই রাস্তাঘাট তৃণমূলের দখলে।    লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে সফরে জিটিএর প্রতি মুক্তহস্ত মমতা।    ডুয়ার্সে চিতাবাঘের চামড়া সহ আটক পাঁচ চোরাচালানকারী।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিজেপি নেতার মাতৃবিয়োগে সমবেদনা জানাতে দুর্গাপুরে রাজ্যপাল।


মা তারার স্নান দর্শন করতে পারবেন না পুণ্যার্থীরা

আমাদের ভারত, তারাপীঠ, ১২ জানুয়ারি: বহু বছরের পুরনো প্রথা ভাঙছে তারাপীঠ মন্দির কর্তৃপক্ষ। এত দিন পুণ্যার্থীরা মায়ের স্নান দর্শন করতে পারতেন। কিন্তু আগামী সোমবার থেকে আর মা তারার স্নান দর্শন করতে পাবেন না পুণ্যার্থীরা।শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা জানিয়ে দিলেন মন্দির কমিটির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় ও ধ্রুব চট্টোপাধ্যায়।
কথিত আছে, দেড় হাজার বছর আগে বণিক জয় দত্ত সওদাগর তারাপীঠ মহাশ্মশানের শেতশিমূল গাছের নিচে থেকে মা তারার শীলামূর্তি উদ্ধার করে সেখানেই প্রতিষ্ঠা করেন। পরে রাণী ভবানী মায়ের বর্তমান মন্দির প্রতিষ্ঠা করে সেই মন্দিরে মাকে নিয়ে যান।
সম্প্রতি মন্দির এলাকা সংস্কারের নামে মায়ের প্রাচীন ভোগ ঘর ভেঙে ফেলেছে তারাপীঠ-রামপুরহাট উন্নয়ন পর্ষদ। এবার বন্ধ হচ্ছে মায়ের স্নান দর্শন।
শুক্রবার তারাপীঠে সাংবাদিক সম্মেলন করে মন্দির কমিটি তাঁদের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেয়। সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় বলেন, “চিরাচরিত প্রথা মেনে ভোর বেলা মা তারাকে স্নান করিয়ে রাজবেশ পরানোর পর মন্দিরের দরজা জন্য খুলে দেওয়া হত। স্নানের সময় পুণ্যার্থীরা মনে করলে মাকে স্নান করাতে পরতেন। বর্তমানে তারাপীঠে পুণ্যার্থীদের চাপ বেড়ে যাওয়ায় ওই নিয়ম বাতিল করা হল”। সময় বাঁচানোর জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলে তারাময়বাবু জানান। তিনি বলেন, “পুণ্যার্থীরা নিজের হাতে স্নান করানোর জন্য দেড় দু ঘন্টা সময় ব্যয় হত। ততক্ষণ বন্ধ থাকত মন্দিরের দরজা। বহু পুণ্যার্থীকে এর জন্য লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হত। স্নান দর্শন বন্ধ করলে সেই সময় অনেকটা সাশ্রয় হবে। সোমবার থেকে মন্দিরের নির্দিষ্ট সেবাইত মায়ের স্নান করাবেন। তারপর মন্দিরের দরজা খুলে দেওয়া হবে”। মন্দির কমিটির এই সিদ্ধান্তে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কেউ বলেছেন পুণ্যার্থীরা দীর্ঘ দিন ধরে মনষ্কামনা করে শাড়ি বিভিন্ন অলঙ্কার নিয়ে এসে মা কে স্নান করিয়ে নিজে হাতে পরিয়ে দিতেন। এই নিয়মের ফলে তারা বঞ্চিত হবেন। আবার কারও মতে মায়ের স্নান আমরা সবাই কি বাড়িতে দেখি? তাহলে মা তারার নগ্ন শীলা মূর্তিকেই বা কেন স্নান করানো হবে? তাই মন্দির কমিটির এই সিদ্ধান্তকে তাঁরা সমর্থন জানিয়েছেন।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of