বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    ১৯শেই সাফ তৃণমূল : মোদী।    চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে জেলে যাবেন পার্থ : কৈলাশ বিজয়বর্গীয়    আমি বিজেপির ভয়ানক বিরোধী, কিন্তু এটা উকিলের চোখে ধরা পড়ছে মূর্তি টিএমসিপি ভেঙেছে : অরুণাভ ঘোষ।    মুখ্যমন্ত্রীর প্ররোচনায় নরসংহার শুরু করতে পারে তৃণমূল, রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি বিজেপির।    তৃণমূল বিদ্যাসাগরের মূর্তি যে ভেঙ্গেছে সেখানে পঞ্চ ধাতুর মূর্তি বানিয়ে দেব : ঘোষণা মোদীর।    সারদা নরদা নিয়ে বড় বড় কথা আর চিটফান্ডের মালিকের মাঠে সভা করছে প্রধানমন্ত্রী : মমতা।    কমিশনের নির্দেশ অমান্য ! স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে গরহাজির রাজীব কুমার।    এবার লালবাজারে ডাকা হতে পারেন অমিত শাহকে!    ক্ষুব্ধ ঝাড়গ্রামের নীরব অপেক্ষা ফলাফলের জন্য।    “নারী শিক্ষার দিশারীকে ভূ-লুন্ঠিত হতে হল বাঙালীদের হাতে, এর থেকে লজ্জা কি আছে?”: ক্ষোভ বীরসিংহবাসীর।    রানাঘাটের মত নিশ্চিত আসনেও সিঁদুরে মেঘ দেখছে তৃণমূল।    মহামিছিল করে ভাটপাড়ায় প্রচার শেষ করতে চান মদন।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    নির্বাচনের আগে ভোট পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।


সুখি দাম্পত্য জীবন পেতে একে অপরকে ধন্যবাদ জানান!

আমাদের ভারত ডেস্ক, ১৪ মার্চ: বিয়ের পর দাম্পত্য জীবনে সব কিছুই যেন স্বপ্নের মতো লাগে। এক সময় যার সব কিছুই আপনার ভাল লাগতো সেই মানুষটাই যেন এখন একদম বদলে গিয়েছে। এটাই কি চিরন্তন সত্য? আপনার মধ্যে কোনও পরিবর্তন আসেনি তো?

আগে সঙ্গীর ছোটখাট কাজেও উপচে পড়তো আপনার মুগ্ধ প্রশংসা। আর এখন প্রত্যাশা পূরণ না হলেই অভিমান আর দোষারোপ। তাই তো? জানি সপক্ষে যুক্তি আছে প্রচুর তবু আপনার প্রতিক্রিয়ার প্রভাব কিন্তু সম্পর্কে পড়বেই। একে অপরের প্রতি প্রশংসা, মুগ্ধতা আর কৃতজ্ঞতাই কিন্তু এক সময়ে সম্পর্ক সুন্দর করেছিল।তাই গবেষকরা বলছেন যদি বিবাহিত সম্পর্ক সুন্দর রাখতে চান তাহলে ধরে রাখুন সেই কৃতজ্ঞতা, মুগ্ধতা। সঙ্গীকে ধন্যবাদ দিন।

ইউনিভার্সিটি অফ জর্জিয়ার গবেষক অ্যালেন বার্টন ৪৬০ জন দম্পতির ওপর সমীক্ষা চালান। টেলিফোনে সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলার সময় তাদের একে অপরকে ধন্যবাদ জানাতে বলেন। সমীক্ষায় দেখা গেছে যারা সঙ্গীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাদের দাম্পত্য জীবন অনেক সুস্থির। পড়ে ভাবছেন যত্ত সব বোকা বোকা ব্যাপার। কথায় কথায় থ্যাঙ্ক ইউ বলতে যাব কোন দুঃখে?

ব্যাপারটা কিন্তু এতটা জটিল নয়। অ্যাটিটিউড অফ গ্র্যাটিটিউডের তত্ব জানেন নিশ্চয়ই? অর্থাৎ, ভাল কিছুর জন্য যদি আমরা কাউকে ধন্যবাদ জানাই তবে সেই ভাল কাজটা তার কাছ থেকে বারে বারে ফিরে পাই। তেমনই সঙ্গীর ভালবাসা, আপনার প্রতি আস্থা রাখা, ভারসা যোগানো, সময়ে-অসময়ে পাশে থাকার জন্য যদি আপনি কৃতজ্ঞ থাকেন, তাকে আপনার ভাললাগা, মুগ্ধতার কথা জানান তবে আপনার সম্পর্ক সুন্দর হবেই। হ্যাঁ থ্যাঙ্ক ইউ-এর গুরুত্ব এতটাই।

ছোট বেলা থেকে যেই কাজের জন্য বকা খেয়েছেন সেটা বেশি ভাল শিখেছেন নাকি যেখানে প্রশংসা পেয়ে, ধন্যবাদ কুড়িয়েছেন সেটাই আরও ভাল করে করতে ইচ্ছা হয়েছে? শুধু ছোটদের ক্ষেত্রে নয়, গোটা জীবনে সব বয়সের, সব সম্পর্কের জন্যই খাটে এই সহজ সত্যিটা। বিয়ের ব্যাপারে তো বটেই।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of