বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম : amaderbharatdesk@gmail.com    পাকিস্তানকে জবাব দিতে আরব সাগরে নামানো হলো আইএনএস বিক্রমাদিত্য ও নিউক্লিয়ার সাবমেরিন।    মুম্বই স্টেশনে ফুটব্রিজ ভেঙে হত ৫, আহত ৩০।    তৃণমূলে বড় ধাক্কা, বিজেপিতে যোগ দিলেন অর্জুন সিং।    বিজেপিই রাজ্যের ভবিষ্যৎ, তাই অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন : দিলীপ ঘোষ।    লড়বেন কী, ঘরেই বিড়ম্বনায় বিজেপির নতুন কৃষ্ণ-অর্জুন।    অর্জুন সিং দু’লক্ষের বেশি ভোটে হারবে দীনেশ ত্রিবেদির কাছে: অভিষেক।    বাংলার মানুষ উন্নয়ন দেখে ৪২ এ ৪২ উপহার দেবে : অপরূপা পোদ্দার।    প্রয়াত বিধায়ককে শ্রদ্ধা জানিয়ে রাজনীতির আঙিনায় সত্যজিত জায়া।     মুকুলের পথ ধরেই কি বিজেপিতে এবার ছেলে শুভ্রাংশু!    সমঝোতা না হলে রাজ্যে একাই লড়বে কংগ্রেস, সাফ জানালেন সোমেন মিত্র।    লোকসভা ভোটে বিপ্লব নয়, বালুরঘাটে অর্পিতার সেনাপতি হচ্ছে বাচ্চু ও শঙ্কর।    জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বৈঠক এড়ালেন অর্জুন ঘনিষ্ঠ ২২ জন কাউন্সিলার।    আজ আপনার কেমন যাবে জেনে নিন।    বিদেশে বর্ণবিবাদের শিকার হলেন বলিউডের এই অভিনেত্রী!


অজানা জ্বরের মড়ক থেকে শিশুদের বাঁচাতে চাই সচেতনতা

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ১০ আগস্ট : অজানা জ্বরে মৃত্যুর খবর মাঝে মাঝে শোনা যায়। সাধারণ রক্ত পরীক্ষায় কোনও জীবানু পাওয়া যায় না। ফলে সঠিক রোগ নির্ণয়ের অভাবে রোগীর মৃত্যু ঘটে। স্ক্রাব টাইফাস এরকমই একটি অজানা জ্বর। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া বা এনকেফ্যালাইটিসের মত এই রোগের বহিঃপ্রকাশ জ্বর। এই জ্বর সাধারণ জ্বরের ওষুধে কমে গেলেও আবার ঘুরে ঘুরে আসে এবং সঠিক চিকিৎসা না হলে পেটে বুকে জল জমে শিশুর মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।
রক্তে ডেঙ্গু বা ম্যালেরিয়ার জীবানু না থাকা সত্বেও অনেকেই অজানা জ্বরে মারা যায়। স্ক্রাব টাইফাস একধরণের ছোট মাকড়সা বা ছারপোকার মত একধরনের পোকার কামড় থেকে সৃষ্টি। এই স্ক্রাব টাইফাস জ্বর সৃষ্টিকারি পোকামাকড় ইঁদুরের মাধ্যমে মানুষের দেহে সংক্রামিত হয়। বিশেষ করে শিশুদের। রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে এই স্ক্রাব টাইফাস রোগ ধরার মত কোনও ল্যাবরেটরি এখনো পশ্চিমবঙ্গে নেই।
সম্প্রতি কোলাঘাটের এক চিকিৎসক এই রোগে আক্রান্ত বেশ কয়েকজন শিশুকে সুস্থ করে তুলেছেন। শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ প্রবীর ভৌমিক জানিয়েছেন, সম্প্রতি দীর্ঘদিন জ্বরে আক্রান্ত একটি শিশু কিছু লক্ষণ দেখে তাঁর সন্দেহ হওয়ায় তিনি ওই শিশুর রক্ত মুম্বই পাঠান। সেখানকার রিপোর্টে এই স্ক্রাব টাইফাস রোগের জীবানুর সন্ধান পাওয়া যায়। তারপর থেকে আরো বেশ কয়েকজন শিশু পূর্ব মেদিনীপুর জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে তার কাছে চিকিৎসা করিয়ে ভাল হয়েছে। এদের মধ্যে ১৫ জন শিশুর দেহে এই রোগের জীবানুর দেখা মিলেছে। এই মারণ রোগ যাতে মড়কের আকার না নেয় তাই ডাঃ ভৌমিক তার কাছে সেরে ওঠা শিশু ও তার পরিবারের লোকেদের একত্রিত করে এলাকার মানুষকে সচেতন করার অনুরোধ জানান।

এই স্ক্রাব টাইফাস রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসারত বা ভাল হয়ে যাওয়া শিশুর মায়েরা জানিয়েছেন, তাদের শিশু দীর্ঘদিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত ছিল, ডাঃ ভৌমিকের চিকিৎসায় তাদের সন্তান ভাল হয়েছে।

এই স্ক্রাব টাইফাস রোগ সঠিকভাবে নির্নয় করে চিকিৎসা না হলে ক্রমাগত এটা মড়কের আকার ধারণ করতে পারে তাই চাই সচেতনতা। সঠিকভাবে চিকিৎসা করলে অজানা জ্বরে আর কোনও রোগীকে মরতে হবে না।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of