বাংলাদেশ সীমান্তে বানিজ্যে বাধা কেন? রাজ্যকে ফের কড়া চিঠি কেন্দ্রের

আমাদের ভারত, ৬ মে : লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হলেও আন্তর্জাতিক সীমান্ত দিয়ে পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ২৪ এপ্রিল। কিন্তু তা সত্ত্বেও বাংলাদেশ থেকে ভারতে ট্রাক ঢোকার প্রক্রিয়া শুরু হয়নি। কেন এই প্রক্রিয়া আটকে রয়েছে তা জানতে চেয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য সচিবকে কড়া চিঠি দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব।

চিঠিতে স্বরাষ্ট্র সচিব জানিয়েছেন কেন্দ্র সরকারের নির্দেশ অবমাননা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আর এর ফলে লঙ্ঘিত হয়েছে আইন। এক সাথে সংবিধানের ২৫৩,২৫৬,২৫৭ ধারায় আইন লঙ্ঘন করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার বলে উল্লেখ করা হয়েছে চিঠিতে।

মঙ্গলবার এই চিঠি রাজ্য সচিবকে পাঠিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব। ২৪ এপ্রিল অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিবহনের জন্য আন্তর্জাতিক সীমান্ত খুলে দেওয়ার দ অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এর ফলে ভারত- নেপাল,ভারত-ভুটান, ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে পণ্য পরিবহন শুরু করার কথা। কিন্তু কেন্দ্র সরকারের কাছে রিপোর্ট রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাদের রাজ্যের সীমানার মধ্যে দিয়ে ভারত বাংলাদেশ পণ্য পরিবহন শুরু করেনি।

এর ফলে ভারত থেকে বাংলাদেশে যাওয়া বিপুল সংখ্যক পণ্যবাহী ট্রাক বর্ডার ক্রসিং পোস্টে আটকে রয়েছে। একই ভাবে বাংলাদেশ থেকে আসা পণ্য পরিবাহী ট্রাকও ও আটকে রয়েছে ওদিকের সীমান্তে। কারণ তাদেরকেও ভারতে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।

পয়লা মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক যে নতুন গাইডলাইন প্রকাশ করেছে তাতে স্পষ্ট লেখা ছিল, কোন রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সীমান্ত বাণিজ্য আটকাতে পারবেনা। এই বিষয়টি চিঠিতে উল্লেখ করেছেন স্বরাষ্ট্র সচিব। তাঁর কথায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার একতরফা ভাবে সীমান্ত বরাবর বাণিজ্য আটকে রেখেছে। এর ফলে ভারত সরকারের আন্তর্জাতিক চুক্তি রূপায়নের সমস্যা তৈরি হচ্ছে। অথচ এসব আন্তর্জাতিক বাণিজ্য চুক্তি আইন সম্মত।

চিঠিতে বলা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ শুধু বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের শর্তই লঙ্ঘন করেছে। চিঠিতে অবিলম্বে সীমান্ত বরাবর বাণিজ্যপথ খুলে দেওয়ার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে এই বিষয়ে দ্রুত রিপোর্ট পাঠানোর কথা বলা হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here