৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ল লকডাউন, রাজ্যে নতুন করোনা আক্রান্ত ৬, সংখ্যা বেড়ে ৯৫, কেন্দ্র বলছে ১২৬

ভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ১১ এপ্রিল: বেসরকারি মতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে যতই জল্পনা থাক, এ রাজ্যে সরকারি ভাবে মৃতের সংখ্যা ৫ জনের বেশি বাড়েনি। তবে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। শনিবার নবান্নে হওয়া সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আর ৬ করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। ফলে চিকিৎসাধীন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯৫। মোট সংখ্যা ১১৬। কেন্দ্রের দাবি, বঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১২৬ জন।

অন্যদিকে বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এদিন রাজ্যে লকডাউনের মেয়াদ ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। আগামী ৩০ এপ্রিল বৈঠকের মাধ্যমে পর্যালোচনা করেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
তিনি জানিয়েছেন, এই সময় আমাদের সবাইকে একসঙ্গে লড়াই করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, আক্রান্তের হার অনুসারে গোটা দেশকে বিশেষ কয়েকটি জোনে ভাগ করে লকডাউন চালানো হবে। আগামী দুই-তিনদিনের মধ্যে এই সম্পর্কিত গাইডলাইন ঘোষণা করে দেওয়া হবে।

ভিডিও কনফারেন্সে ১৩টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। সূত্রের খবর, কমবেশি সকলেই লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর ব্যাপারে সওয়াল করেছিলেন।

মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, ১০ জুন পর্যন্ত স্কুল কলেজ সহ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এই সময়ে বাড়িতে বসেই পড়াশোনা করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। ক্লাস এইট পর্যন্ত এমনিতেই প্রমোশন দিয়ে দেওয়া হয়েছে। টিভি বা নিউজ পোর্টালের মাধ্যমে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সংবাদমাধ্যমগুলিকে ধন্যবাদ জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, কাল ও পরশু নবান্ন স্যানিটাইজেশনের কাজ চলার কারণে বন্ধ থাকবে।

একই সঙ্গে তিনি অনুরোধ করেন, ‘লকডাউন মানুন। কেউ কোথাও জমায়েত করবেন না। পুলিশ ও স্বাস্থ্যকর্মীরা কোথাও টেস্টের জন্য গেলে প্লিজ সহযোগিতা করবেন।” সব্জির বাজার, মুদির দোকান, ফুলের দোকান, মিষ্টির দোকান– এসব কিছুই খোলা থাকবে বলে। তবে বাজার খোলার সময় সকাল ১০টা থেকে ৬টা। সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মেনে গম, তেলের মিল, বেকারিও চালু থাকবে। ছাড় দেওয়া হবে অনলাইন খাবার ডেলিভারিকেও। তবে নিয়ম না মানলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here