আলিপুরদুয়ারে জঙ্গলে ১০ লক্ষ চারা রোপন, উৎসাহ নিয়ে শুরু বনমহোৎসব জেলাতে

আমাদের ভারত, আলিপুরদুয়ার, ২৭ জুলাই:
একদিকে জঙ্গলে কাঠমাফিয়াদের দৌরাত্ম্য। অন্যদিকে বনমহোৎসব চলাকালীন সময়ে পরপর তিনদিন জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের লাগোয়া এলাকায় কাঠমাফিয়াদের পিছু ধাওয়া করে চোরাই কাঠ উদ্ধার করেছে বনদফতর।

আলিপুরদুয়ারে যখন জেলা প্রশাসন, বনপ্রশাসন মিলিতভাবে যখন বনমহোৎসব পালন করছে তখন জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান লাগোয়া দলগাঁও রেঞ্জের তরফে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার অবৈধ সেগুন কাঠ উদ্ধার করে। আর ঠিক এমনই একটি সময়ে তাৎপর্যপুর্ন তথ্য তুলে ধরল বলেন বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর শুভঙ্কর সেনগুপ্ত। তিনি জানান, প্রাক বর্ষার শুরু থেকে গত ২ মাসে শুধু বক্সার জঙ্গলেই ১০ লক্ষ গাছের চারা লাগানোর কাজ সম্পুর্ন করে ফেলেছে বনদফতর। পাশাপাশি আলিপুরদুয়ার জেলা জুরে আগামী কয়েকদিন প্রায় আড়াই লক্ষ গাছের চারা লাগানো হবে ।যাতে গুরুত্ব দিয়ে বিভিন্ন ফলের গাছের চারা লাগানো হবে বলেও জানান। তিনি এও জানান, বনমহোৎসব চলাকালীন গোটা রাজ্যের সবকটি জে.এফ.এম.সি কমিটির মধ্যে প্রতিযোগিতা চলে। তাতে এবার আলিপুরদুয়ারের উত্তর লতাবাড়ি জেএফএমসি কমিটি সেরার পুরস্কার পেয়েছে। বন ও বন্যপ্রাণী সঙ্গে প্রকৃতি রক্ষায় উত্তর লতাবাড়ির সক্রিয়তা বাকিদের উৎসাহ দেবে।

এদিকে বনমহোৎসবকে সামনে রেখে গতকাল জেলাসদরের প্যারেড গ্রাউন্ড ময়দানে উপস্তিত ছিলেন জেলা সভাধীপতি শিলা দাস সরকার, জেলাশাষক সুরেন্দ্র কুমার মিনা,বক্সা ব্যাঘ্র প্রজল্পের ফিল্ড ডিরেকটার শুবঙ্কর সেনগুপ্ত,জলদাপাড়া বনবিভাগের ডিএফও কুমার বিমল, বক্সার ডিএফডি শ্রীহরিশ সহ পুলিস ও বনদফতরের জেলার শীর্ষ কর্তারা।উল্লেখ্য, বক্সা ও জলদাপাড়া একসাথে দুটি জাতিয় উদ্যান রয়েছে আলিপুরদুয়ার জেলায়।বিশ্ব পরিবেশ দিবস, বন্যপ্রান দিবস,বনমহোৎসবের মত অনুষ্ঠানগুলিতে সব সময় বারতি উৎসাহ থাকে।

কোভিড এর কালো ছায়া থাকলেও এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্যারেড গ্রাউন্ডের একটি ধার ঘেঁষে প্রায় ৫০টি বিভিন্ন ফল এবং অনান্য চারাগাছ রোপন করা হয়। শুভঙ্কর সেনগুপ্ত বলেন, এবার গোটা রাজ্যে সাড়ে ৮ কোটি চারা লাগানো হবে। যার মধ্যে আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত সুন্দরবন এলাকায় ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ লাগানো হবে। বাকি সারে ৩ কোটির মধ্যে ২ কোটি চারা জঙ্গলে, দেড় কোটি চারা জঙ্গলের বাইরে রোপন করা হবে। আম, জাম, কাঠাল, লিচুর মত প্রচুর ফলের গাছ থাকছে, তার সঙ্গে এবার সুপারি গাছের চারা বিলি করা হবে আলিপুরদুয়ার জেলায়। কারন সুপারি আমাদের রাজ্যের একটি অন্যতম অর্থকারি ফসল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here