চন্ডিগড় বিশ্ববিদ্যালয় স্নানের ভিডিও ফাঁস কাণ্ডে ধৃত ২, ক্ষোভে ফুঁসছে ছাত্রীরা

আমাদের ভারত, ১৮ সেপ্টেম্বর: চন্ডিগড় বিশ্ববিদ্যালয় ভিডিও ফাঁস কাণ্ডে সিমলা থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই মামলায় এখনো পর্যন্ত দু’জনকে গ্রেফতার করা হল। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পাঞ্জাব পুলিশ। জড়িত ব্যক্তির নাম সানি মেহেতা। বছর ২৩-এর এই যুবক থাকেন সিমলায়।

এর আগে যে তরুণীকে গ্রেফতার করা হয়েছে তিনি ওই একই এলাকার বাসিন্দা বলে পাঞ্জাব পুলিশ আগেই জানিয়েছিল। দু’জনে দু’জনকে চেনে। পাঞ্জাব পুলিশের আধিকারিক গুরপ্রীত সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছিলেন, সিমলা থেকে দ্রুত ওই ছাত্রীর পরিচিত তরুণকে গ্রেফতার করতে পারলে এই বিষয়ে আরও তথ্য জানা যাবে। তার মোবাইলটিও ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী অন্যান্য আবাসিকদের আপত্তিকর ভিডিও রেকর্ড করেছে ও তা নেট মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে। রবিবার চন্ডিগড় বিশ্ববিদ্যালয় তা নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। যদিও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিবৃতি জারি করে দাবি করেছে, কেবল মাত্র একটি ভিডিও ফাঁস হয়েছে। সে ভিডিওটি এক ছাত্রী পাঠিয়েছিলেন সিমলায় তারা এক পুরুষ বন্ধুকে। নিজের স্নানের দৃশ্য মোবাইল বন্দি করেছে সে। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের অভিযোগ, ভিডিও নেট মাধ্যমে ভাইরাল হতেই আরও ৮ ছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে ছাত্রাবাসের ভেতরে।

শনিবার রাত থেকেই এই ঘটনা ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে মোহালির চন্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে। ঘটনা তদন্তে নেমে পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের ফোন থেকে একটি ভিডিও পাওয়া গেছে, সেটি তার নিজেরই। ভিডিওটি নিজের পুরুষ বন্ধুকে পাঠিয়েছিলেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে ওই একই কথা জানানো হয়েছে লিখিত আকারে।

অন্যদিকে ছাত্রীদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন সনু সুদ। সাধারণ মানুষকে দায়িত্বশীল হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন। তিনি টুইট করে বলেছেন, চন্ডিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে যা হয়েছে তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। এখন আমাদের বোনেদের পাশে দাঁড়ানোর সময়, দায়িত্বশীল সমাজের উদাহরণ তৈরি করতে হবে আমাদের। ভুক্তভোগী ছাত্রীদের নয়, এটা আমাদের পরীক্ষার সময়। সকললে দায়িত্বশীল হয়ে উঠুন। নেট মাধ্যমে ভিডিওগুলি যাতে আর না ছড়ায়, আর কেউ যাতে ভিডিও শেয়ার না করে, সে অনুরোধ করেছেন সনু।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here