মৃত্যু রুখে কলকাতাতেই সুস্থ ৩০০! ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৪৪১, সুস্থ ৫৬২, মৃত ১১

রাজেন রায়, কলকাতা, ২০ জুন: অবশেষে করোনার বিরুদ্ধে বিশাল সাফল্য শহরবাসীর। ২৪ ঘন্টায়
কলকাতায় প্রথম বার ৩০০ জন একসঙ্গে সুস্থ হলেন। শুধু তাই নয়, এদিন কলকাতায় মৃত্যুও হয়েছে মাত্র ১ জনের। এতদিন কলকাতা বিপুল সংক্রমণ এবং মৃত্যুতে বিধ্বস্ত থাকলেও এ দিন কলকাতায় অবশেষে ঊর্ধ্বগামী সুস্থতার হার দেখে আশায় স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। তবে তারা এখনো কোনও মন্তব্য করতে রাজি নন। বেশ কিছুদিন পর পর এভাবে বিপুল সুস্থ হলে তাতে একটি ট্রেন্ড তৈরি হবে এবং বোঝা যাবে শহরবাসী শরীরে করোনা প্রতিরোধ ক্ষমতা চলে এসেছে বলে দাবি স্বাস্থ্য আধিকারিকদের।

ফের ২৪ ঘন্টায় ৪৪১ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৩৫৩১ জনে। আরও ১১ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৫৪০ জনের। এদিকে আরও ৫৬২ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ৭৮৬৫ জন। তার মধ্যে এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতায় প্রথম বার ৩০০ জন এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ৭২ জন সুস্থ হওয়ার জেরে সুস্থতার হার ফের বেড়ে দাঁড়াল ৫৮.১২ শতাংশে। উল্লেখ্য, এ দিন কলকাতায় মৃত্যুও হয়েছে মাত্র ১ জনের। এতদিন কলকাতা সংক্রমণ এবং মৃত্যুতে বিধ্বস্ত থাকলেও এ দিন কলকাতায় ঊর্ধ্বগামী সুস্থতার হার দেখে আশায় স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা।

এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৫১২৬ জন। শনিবার স্বাস্থ্য দফতর থেকে প্রকাশিত বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৪৯ টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৩৯০৯৪২ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১০৩৩০ জনের। রাজ্যের ৭৭টি করোনা হাসপাতাল, ২৪টি সরকারি এবং ৫৩টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০১০৫টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে
৩৯৫টি। তার ২০.৮৪ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৯১২৩ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৮৯৪২১ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৩৬৫৮২ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১৬০৭২৬ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৭৪৮২টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৬৩৫০১ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ১৯১২৯০ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬টি সেফ হোমে ৬৯০৮টি বেড রয়েছে এবং তাতে ২৩১ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ১২৭ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ৪৫২৭ জনের। এদিন কলকাতায় প্রথমবার মাত্র ১ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতে মোট মৃত্যু ৩২৩ জনের। এছাড়া হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২ জন করে এবং দার্জিলিং, বীরভূম, হুগলি এবং পশ্চিম মেদিনীপুরে ১ জন করে মোট ৪ জন এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ১ জনের মৃত্যু হওয়ায় মোট আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৫৬ জন করে সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গের কোচবিহার এবং দক্ষিণবঙ্গের বীরভূম, পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের সব ক’টি জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here