৪ লক্ষ টেস্ট ছাড়াল, বাড়ল মৃত্যুও! ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৪১৪, সুস্থ ৪৩২, মৃত ১৫

রাজেন রায়, কলকাতা, ২১ জুন: ফের ২৪ ঘন্টায় ৪১৪ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৩৯৪৫ জনে। তবে এদিন মৃত্যু হয়েছে অন্য দিনের থেকে বেশি। আরও ১৫ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৫৫৫ জনের। এদিকে আরও ৪৩২ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ৮২৯৭ জন। তার মধ্যে এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতাতে এদিনও ২০১ জন, হাওড়ায় ৮৮ জন এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ৬০ জন সুস্থ হওয়ার জেরে সুস্থতার হার ফের বেড়ে দাঁড়াল ৫৯.৪৯ শতাংশে।

এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৫০৯৩ জন। রবিবার স্বাস্থ্য দফতর থেকে প্রকাশিত বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৪৯টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৪০১৪৯১ জনের। সরকারি ভাবে ৪ লক্ষ টেস্ট ছাড়িয়ে গেল রাজ্য। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১০৫৪৯ জনের। রাজ্যের ৭৭টি করোনা হাসপাতাল,
২৪টি সরকারি এবং ৫৩টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০১০৫টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯৫টি। তার ২০.৫৪ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৮৮৯৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৯০৩৫০ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৩৭৮৩৮ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১৬০৭২৮ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৭৩০৪টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৬০৩০৩ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ১৯৫৩৮০ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬টি সেফ হোমে ৬৯০৮টি বেড রয়েছে এবং তাতে ১৬৬ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ১২৬ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ৪৬৫৩ জনের। এদিন কলকাতায় আরও মাত্র ৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতে মোট মৃত্যু ৩২৯ জনের। এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনায় ৪ জন, হাওড়ায় ৩ জন এবং পশ্চিম বর্ধমান ও হুগলিতে ১ জন করে মোট আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে হাওড়ায় ৪৫ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৮৮ জনের উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিনও উত্তরবঙ্গের কোচবিহার এবং দক্ষিণবঙ্গের বীরভূম, পুরুলিয়া, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমান ও ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের বাকি সমস্ত জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here