পরাজিত করোনা! ২৪ ঘন্টায় সুস্থ ৫১৮, পজিটিভ ৩৮৯ করোনা, মৃত ১২

রাজেন রায়, কলকাতা, ১৪ জুন: ঠিক যেন উল্টে গেল হিসেবটা। এতদিন বিপুল হারে সংক্রমণ এবং কিছু পরিমাণ সুস্থ হাওয়া সংখ্যা দেখতে অভ্যস্ত ছিলেন রাজ্যবাসী। রবিবার রাজ্যে এই প্রথম সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল সংক্রমিত হওয়ার সংখ্যাকে। যা দেখে রীতিমত উৎসাহিত স্বাস্থ্য ভবনের শীর্ষ আধিকারিকরা। রাজ্যের মানুষের শরীরে করোনার অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে বলে দাবি স্বাস্থ্য আধিকারিকদের।

এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে উত্তরবঙ্গের কোচবিহারে একসঙ্গে ১৪১ জন এবং দক্ষিণবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা একসঙ্গে ২৮২ জন সুস্থ হওয়ার ধাক্কায় ২৪ ঘন্টা সুস্থ হলেন ৫১৮ জন। যার ফলে সুস্থ হওয়ার হার ফের বেড়ে দাঁড়াল ৪৫.৬৩ শতাংশে।

অন্যদিকে এদিন ফের ২৪ ঘন্টায় ৩৮৯ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১১০৮৭ জনে। আরও ১২ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৪৭৫ জনের। আরও ৫১৮ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ৫০৬০ জন।

এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৫৫৫২ জন। তার মধ্যে এ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা কমেছে ১৪১ জন। রবিবার স্বাস্থ্য দফতর থেকে প্রকাশিত বুলেটিনে এমনটাই জানানো হয়েছে।
বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৪৫ টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৩৩৩৭৩৩ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৯০২৬ জনের। সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ১৪২৫৯ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৮১৯৩০ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৫৭৯২৩ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১১৯৬২৮ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ১০৩১৮টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৯৪৫২৯ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ১৪৬৯৬৫ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ১৫৮ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ৩৬৭২ জনের। এদিন কলকাতায় আরও ৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতেই মোট মৃত্যু ২৯৩ জনের। এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনা ৭০ জন এবং হাওড়াতে ৪০ জনের সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া হাওড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, নদিয়া দার্জিলিং, উত্তর ২৪ পরগনা এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১ জন করে মোট আরও ৬ মৃত্যু হয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর দক্ষিণবঙ্গের পুরুলিয়া, বাঁকুড়া এবং ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের সব ক’টি জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here