কমল সুস্থতার হার! ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন করোনা আক্রান্ত ৫২১, সুস্থ ২৫৪, মৃত ১৩

রাজেন রায়, কলকাতা, ২৭ জুন: টানা মাসখানেক ধরে সুস্থতার হার বৃদ্ধির পর এ যেন ফের উলটপুরাণ। আচমকা পর পর দু’দিন ৫০০ ছাড়িয়ে সংক্রমণ এবং সুস্থতার হার কমে যাওয়া অন্তত সেদিকেই ইঙ্গিত দিচ্ছে। রাজ্যে কোনও কারণে ফের সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে কি না, আপাতত সেই প্রশ্নই ভাবাচ্ছে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের।

শনিবারের বুলেটিন অনুযায়ী, ফের ২৪ ঘন্টায় ৫২১ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৬৭১১ জনে। আরও ১৩ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৬২৯ জনের। এদিকে আরও ২৫৪ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ১০৭৮৯ জন।

এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতাতে এদিনও ১০৯ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৪৯ জন এবং হাওড়ায় ৩৩ জন সুস্থ হয়েছেন। তবে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সুস্থতার হার কমে দাঁড়াল ৬৪.৫৬ শতাংশে। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৫২৯৩ জন। তার মধ্যে এদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ২৫৪ জনের।

বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৫০টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৪৫৮৩৪৩ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৯৫৪৮ জনের। রাজ্যের ৭৮টি করোনা হাসপাতাল, ২৫টি সরকারি এবং ৫৩টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০৪৭২টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯৫টি। তার ২১.৮৩ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৭১৮১ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৯৪৯৯৩ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৮৪২৯১ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ২২৩১৯২ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৪৫১৮টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ২৭৪৯২ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ২৩৪২৮৭ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬টি সেফ হোমে ৬৯০৮টি বেড রয়েছে এবং তাতে ৪৬৭ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ১৪১ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ৫৪০২ জনের। এদিন কলকাতায় আরও মাত্র ৫ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতে মোট মৃত্যু ৩৫৯ জনের। এছাড়া এদিন উত্তর ২৪ পরগনায় ৪ জন আর হাওড়ায় ২ জন, হুগলিতে ১ জন এবং মালদায় প্রথম ১ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হওয়ায় আরও ৮ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে উত্তর ২৪ পরগনায় ১১৭ জন, হাওড়ায় ১০৬ জন এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৬৬ জনের সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিনও উত্তরবঙ্গের কালিম্পং, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর এবং দক্ষিণবঙ্গের নদিয়া, পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের বাকি সমস্ত জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here