করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশের ৬২৪ জন চিকিৎসকের প্রাণ কেড়েছে, পশ্চিমবঙ্গে মৃত্যু হয়েছে ৩০ জনের

আমাদের ভারত, ৪ জুন: দেশ জুড়ে কোভিডের মারাত্মক প্রকোপে সাধারণ মানুষের প্রাণ বাঁচাতে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে থেকে পরিস্থিতির মোকাবিলা করছেন দেশের চিকিৎসকরা। আর এই যুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন বহু চিকিৎসক। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (আই.এম.এ) বিবৃতিতে, ২ জুন পর্যন্ত গোটা দেশ জুড়ে কোভিড-১৯এ আক্রান্ত চিকিৎসকদের মৃত্যুর সংখ্যা ৬২৪। পরিসংখ্যান বলছে তার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে ৩০ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশ জুড়ে চিকিৎসক মৃত্যুর ক্ষেত্রে রাজধানী দিল্লি প্রথম স্থানে রয়েছে। বিহার দ্বিতীয় এবং উত্তর প্রদেশ তৃতীয়। চিকিৎসকদের মৃত্যুর সংখ্যা দিল্লিতে ১০৯, বিহারে ৯৬, উত্তর প্রদেশে ৭৯, রাজস্থানে ৪৩, ঝারখন্ডে ৩৯, আন্ধ্রপ্রদেশে ৩৪, তেলেঙ্গানায় ৩২ এবং গুজরাটে ৩১। গত বছর করোনার প্রথম ঢেউয়ে ৭৪৮ জন ডাক্তারের প্রান কেড়েছিল তবে দ্বিতীয় ঢেউয়ে এইঅল্প সময়েই ৬২৪ জন ডাক্তারকে হারাতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন আই.এম.এ।

এর মধ্যেই মধ্যপ্রদেশে প্রায় তিন হাজার ধর্মঘটরত জুনিয়র ডাক্তার পদত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে। প্রসঙ্গত, গত সোমবার ৩১ মে তারা ধর্মঘট শুরু করেন। মধ্যপ্রদেশ জুনিয়র ডক্টর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডঃ অরবিন্দ মিনা জানান যে, গত ৬ মে রাজ্য সরকার তাদের ভাতা বৃদ্ধি ও কোভিডে আক্রান্ত হলে তাদের এবং তাদের পরিবারের বিনামূল্যে চিকিৎসা করার বন্দোবস্ত করার সাথে অন্যান্য দাবি গুলিকে মেনে নিলেও পরে তার পদক্ষেপ করেনি।

এরপর বৃহস্পতিবার হাই কোর্ট তাদের ধর্মঘটকে বেআইনি বলার সঙ্গে সঙ্গে শুক্রবার দুপুর ২.৩০টার মধ্যেই পুনরায় চিকিৎসকদের কাজ শুরু করতে বলে হাইকোর্ট। নির্দেশিত সময়ের মধ্যে চিকিৎসকরা নিজেদের কাজে যোগ না দিলে তাদের বিরুদ্ধে সরকারকে ব্যবস্থা গ্রহনেরও নির্দেশ দেওয়া হয়। অতিমারির সময় জুনিয়র ডাক্তারদের চিকিৎসা বাদ দিয়ে ধর্মঘট করার সিদ্ধান্তকে তীব্র নিন্দা করে হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট এই নির্দেশ দেওয়ার পর জুনিয়র ডাক্তাররা সকলে পদত্যাগ করে।

এরপর তারা হাইকোর্টের নির্দেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টে যাবে বলেও জানান ডঃ অরবিন্দ মিনা। অতিমারিতে যেভাবে তারা সাধারন মানুষের প্রান বাঁচাতে লড়াই করতে এবং প্রান দিতে হচ্ছে তাতে তাদের এই দাবি অসঙ্গত নয় বলেই মনে করছেন তারা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here