এক দিনে করোনা আক্রান্ত ৭, পরিযায়ীরাই মাথা ব্যথার কারণ, আতঙ্ক শহর থেকে গ্রামে

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, বনগাঁ, ২৬ মে: উদ্বেগ বাড়াচ্ছেন ভিন রাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকরাই। তাঁদের সূত্রে জেলায় বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।

মঙ্গলবার উত্তর ২৪ পরগনার বাগদার এক জন ও গাইঘাটা থানার ছয়জনকে কলকাতার করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সকলেই পরিযায়ী শ্রমিক। ফিরেছেন মহারাষ্ট্র ও মুম্বাই থেকে। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, আক্রান্তদের মধ্যে বাগদার হেলেঞ্চা ১নম্বর কলনির বাসিন্দা এক ব্যক্তি ও গাইঘাটা থানার ঠাকুরনগরের রেল কলনির এক জন, রামচন্দ্রপুরের এক যুবক, গাইঘাটা পানশীলা ইছাপুর ২- এর এক ব্যক্তি, সুটিয়ার এক যুবক, বৈকারার বাসিন্দা এক ব্যক্তি ও গাইঘাটার বকচরা এলাকায় এক বাসিন্দা। এদিন এঁদের সকলকেই প্রশাসনিক ভাবে করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাইঘাটার জন স্বাস্থ্য কর্মদক্ষ ধ্যানেস গুহ বলেন, “জেলায় আরও ৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এঁদের সবাই কর্মসূত্রে ভিন রাজ্যে থাকতেন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে নমুনা পরীক্ষা করা হবে।” এলাকাগুলি সিল করা হয়েছে। পরিবার ও তাদের সংস্পর্শে আসা লোকজনকে কোয়ারান্টাইনের ব্যবস্থার কাজ শুরু হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, গাইঘাটার বাসিন্দারা সকলেই কর্মসূত্রে মুম্বাইয়ে একই সঙ্গে থাকতেন। কিছুদিন আগে সকলেই বাড়ি ফেরেন। সোমবার রাতে তাদের করোনা রিপোর্ট পজ়িটিভ এসেছে।

স্থানীয় বাসিন্দারদের অভিযোগ, প্রশাসন এদের কোয়ারান্টাইনে থাকার নির্দেশ দিলেও তারা সকলেই বাইরে বেরিয়ে বাজার ঘাটে গিয়েছে। প্রতিবেশীদের বাড়িতেও যাতায়াত করেছে।

অন্যদিকে, বাগদার বাসিন্দা কর্মসূত্রে মহারাষ্ট্রে থাকতেন। তিনিও মহারাষ্ট্র থেকে ফেরার সময় প্রায় ২৭ জন এক সঙ্গে একই বাসে বাগদায় ফিরেছেন। কোয়ারান্টাইনে থাকলেও পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন। এর ফলে এলাকা জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। এদিন করোনা রিপোর্ট পজ়িটিভ আসার পরে ওই আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ৫২ জনকে চিহ্নিত করা হয়। এর মধ্যে সাতটি পরিবারের ২৩ জনকে বুধবার কলকাতার করোনা হাসপাতালে ভর্তি হবে।

করোনা চিকিৎসায় এক সময় সাফল্যের মুখ দেখা এই জেলায় একের পর এক পরিযায়ী আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে। অনেকেই বলছেন, সংক্রমণ ঠেকাতে ভিন রাজ্য ফেরত সকলকে প্রাথমিক ভাবে নিভৃতবাসে রাখা জরুরি। প্রশাসন অবশ্য তেমন সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে ভিন রাজ্য ফেরতদের করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা হচ্ছে ধাপে ধাপে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here