এক পুলিশ কর্মীর দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কারণে ৭০ জন হোম কোয়ারান্টাইনে, এলাকায় আতঙ্ক

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, বনগাঁ, ৪ মে: দায়িত্বজ্ঞানহীন এক পুলিশের কারণে ৭০ জন গ্রামবাসীকে যেতে হল হোম কোয়ারেন্টাইনে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার গোপালনগর থানার আকাইপুর পানাপাড়া এলাকায়। ওই পুলিশ কর্মী গোপালনগর আকাইপুরের বাসিন্দা। হাওড়ার টিকিয়াপাড়া থানায় কর্মরত ছিলেন।

বেশ কিছুদিন ধরে তাঁর শরীরে জ্বর সর্দি কাশির উপসর্গ দেখা দেয়। সেখানেই চিকিৎসা করিয়ে শনিবার তার লালারসের নমুনা পরীক্ষা করতে দেয়। এরপর চিকিৎসকরা তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়। ওই দায়িত্বজ্ঞানহীন পুলিশ কর্মী নিজের বাড়ি আকাইপুরে ফিরে কাউকে কিছু না জানিয়ে, সে এলাকার বাচ্চাদের সঙ্গে মাঠে ক্রিকেট খেলে, বন্ধুদের সঙ্গে তাস খেলে, সকালে বাজারে গিয়ে চায়ের দোকানে বসে আড্ডাও মারে বলে গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন। রবিবার রাতে তার পরীক্ষার রির্পোটে দেখা যায় করোনা প্রজেটিভ। তড়িঘড়ি জেলা স্বাস্থ্য দফতর তাকে বারাসাত কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে যায়। এলাকায় ঘুরে জানতে পারে ওই পুলিশ কর্মী ক্রিকেট খেলেছেন, বাজার করেছেন, এমনকি বন্ধুদের সঙ্গে তাসও খেলেছেন। স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, গ্রামে প্রায় ৭০ জনের সংস্পর্শে এসেছে সে। তাদের চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়। সোমবার সকাল থেকে এলাকায় স্যানিটাইজ করা হয়। এমনকি ওই পুলিশ কর্মীর পরিবারকেও হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়।

এলাকার বাসিন্দা রবি হালদার বলেন, এই রকম দায়িত্বজ্ঞানহীন এই রাজ্যের পুলিশ বলেই সম্ভব। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে তাকে আইনত শাস্তি দেওয়া উচি।

বনগাঁ উত্তরের বিধায়ক বিশ্বজিত দাস বলেন, এলাকার মানুষ একেই অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। যদিও সবজি বিক্রি করে দিন কাটাচ্ছিল। তারপর এই এখন সকলেই ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টাইনে থাকলে কি করে চলবে তাদের। এখন আকাইপুর গোপালনগরে করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here