লেখা আছে অশ্রুজলে! শুরু হয়েছে স্বাধীনতার ৭৫ বর্ষপূর্তির উদযাপন

অশোক সেনগুপ্ত
আমাদের ভারত, ২৪ জুলাই: দেশ জুড়ে ‘অমৃত মহোত্‍সব’-এর ঘোষণা আগেই করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পিছিয়ে নেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ডিজিটাল জ্যোতি ও আধুনিক প্রযুক্তির আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে দিল্লির সেন্ট্রাল পার্ক। ২৪ জুলাই সেটি দু’ভাগে টুইটারে ভাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সংগ্রামীদের স্মরণে কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে চলছে বিশেষ প্রদর্শনী। ভার্চুয়াল উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। দিল্লির ১৫টি পার্ক স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নামে চিহ্ণিত করার সিদ্ধান্তের কথা আগেই ঘোষণা হয়েছে। আগামী ১৩-১৫ আগস্ট প্রতিটি বাড়িতে জাতীয় পতাকা তোলার আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন সংস্থা ও বিভাগের ওয়েবসাইটে আনা হচ্ছে ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের পরশ। বাড়িতে বাড়িতে পতাকা তোলার আবেদন করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। সিপিআইএম-এর তরফেও ১৫ দিন ধরে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের ডাক দেওয়া হয়েছে।

এই উপলক্ষে একগুচ্ছ কর্মসূচি নেয় রেল। ১৯ জুলাই তার সূচনা হয় পূর্ব রেলের সদর দফতর ফেয়ারলি প্লেস ও দক্ষিণ পূর্ব রেলের সদর দফতর গার্ডেনরিচে। ২৩ জুলাই পর্যন্ত চলে এই বিশেষ উত্‍সব। অমৃত মহোত্‍সব উপলক্ষে দেশের ৭৫টি স্টেশনকে বেছে নেওয়া হয়। সেই সঙ্গে বেছে নেওয়া হয় ২৭টি ট্রেন। স্টেশন সাজানো হয় আলো দিয়ে। হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কোথাও কোথাও লাইট অ্যান্ড সাউন্ড শো হয়। সাজানো হয় ২৭টি ট্রেনকেও।  

পূর্ব রেল সূত্রে খবর, দেশের ৭৫টি স্টেশনের মধ্যে ছিল পূর্ব রেলের পাঁচটি স্টেশন— বর্ধমান, জিরাট, নৈহাটি, সুভাষগ্রাম এবং ভাগলপুর। কলকাতা মেট্রোর নেতাজি ভবন স্টেশনও ছিল এই ৭৫টি স্টেশনের মধ্যে। বেছে নেওয়া দেশের ২৭টি ট্রেনের মধ্যে ছিল পূর্ব রেলের ৩টি ট্রেন, হাওড়া-কালকা নেতাজি এক্সপ্রেস, শিয়ালদা-অমৃতসর জালিয়ানওয়ালাবাগ এক্সপ্রেস, হাওড়া-সিউড়ি হুল এক্সপ্রেস। 

গার্ডেনরিচে দক্ষিণ পূর্ব রেলের সদর দফতরে উত্‍সবের সূচনা করেন দক্ষিণ পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজার অর্চনা জোশী। সেখানে উদ্বোধন করা হয় খাদির স্টলের, যে স্টল থেকে খাদির তৈরি জাতীয় পতাকা কেনেন দক্ষিণ পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজার। 

৭৫টি স্টেশন, ২৭টি ট্রেন সাজানো হয়। ১৮ জুলাই সূচনা করা হয় বাইক অভিযানেরও, যে বাইক র‍্যালি যায় বিহারের চম্পারণ পর্যন্ত। দক্ষিণ পূর্ব রেলের তরফে পতাকা উড়িয়ে ২১ জুলাই হাওড়া-মুম্বই মেলের যাত্রার সূচনা করানো হয়। এক স্বাধীনতা সংগ্রামীর পরিবারের সদস্যকে দিয়ে। 

ছবি: গান্ধী সংগ্রহশালায়ে প্রশ্নোত্তর প্রতিযোগিতা।

* এর আগে, স্বাধীনতার ৭৫ বছর এবং বিভূতি রঞ্জন সেনগুপ্তর প্রয়াণের ১০০ বছর স্মরণে গত ১২ ডিসেম্বর ব্যারাকপুরের গান্ধী স্মারক সংগ্রহালয় স্বাধীনতা সংগ্রাম-বিষয়ক একটি প্রশ্নোত্তর প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। তাতে ছিল ৭৫ টি প্রশ্নোত্তর, গবেষিকা-অধ্যাপিকা ডঃ কেকা দত্তরায়ের আলোচনা, তথ্যচিত্র প্রদর্শন প্রভৃতি।


* ২৩ জানুয়ারি নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকীতে দিল্লির কনট প্লেসে সুভাষচন্দ্রের মূর্তি উদ্বোধন করা হয়। সেখানে আগে পঞ্চম জর্জের মূর্তি ছিল। যা ১৯৬৮ সালে সরিয়ে ফেলা হয়। প্রধানমন্ত্রী মোদী টুইটারে লেখেন, “এ বছর নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী পালিত হচ্ছে গোটা দেশে। আমি অত্যন্ত গর্বের সঙ্গে ঘোষণা করছি যে এই উপলক্ষ্যে গ্রানাইট পাথরের তৈরি নেতাজির বিশাল মূর্তি ইন্ডিয়া গেটে বসানো হবে। গোটা দেশ নেতাজির কাছে ঋণী হয়ে রয়েছে। তারই স্মারক হয়ে থাকবে এই মূর্তি।”

* ২৬ জানুয়ারি মুক্তি পায় ‘৮/১২’ নামে ছায়াছবি। মূল বিষয় বিনয়-বাদল-দীনেশের মহাকরণ অভিযান।

* সেন্ট্রাল পার্কে কলকাতা বইমেলায় গান্ধী স্মারক সংগ্রহালয়ের স্টলে ২৮ ফেব্রুয়ারি ‘স্বাধীনতার পথে ভারত’ নামাঙ্কিত একটি বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন হয়। প্রদর্শিত হয় ভারতীয় স্বাধীনতার ইতিহাস সম্পর্কিত বিভিন্ন দুর্লভ ছবি এবং লেখা। স্বাধীনতা আন্দোলনে নারীদের বিরাট অবদানকেও এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে তুলে ধরা হয়। স্টলে মহাত্মা গান্ধীর জীবন ও কর্মকাণ্ডের ওপর ১০০টি ছবির সমন্বয়ে একটি বিশেষ ফটো অ্যালবামও প্রদর্শিত হয়। সংগ্রহালয়ের চেয়ারম্যান নারায়ণ বসুর উপস্থিতিতে মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি-র উপাচার্য অধ্যাপক (ড.) সৈকত মৈত্র স্টলটি উদ্বোধন করেন।

* ১৪২৯ বঙ্গাব্দের পয়লা বৈশাখের সকালে অহর্নিশ গ্রন্থাগার ও মানবজমিন-এর ‘স্বাধীনতা ৭৫’ উদযাপনের শুভ সূচনা হয়। ‘অগ্নিযুগের অভিধান’-এর প্রণেতা অধ্যাপক শুভেন্দু মজুমদারের পরিচালনায় হয় বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নিয়ে অভিধান তৈরির এই অভিনব কর্মশালা।

* গত ১ মে থেকে বাগমারি রোডের নাম বদলে হয় প্রফুল্ল চাকি সরণি।
* মে-র গোড়ায় ঋষি অরবিন্দ-বারীন্দ্রদের স্মৃতি সংরক্ষণের লক্ষ্যে তাঁদের স্মৃতিবিজড়িত মুরারীপুকুরে শ্বেতপাথরের ফলক বসানো হয়।

* রাজ্য লেখ্যাগারের পক্ষে ১৯ মে শুরু হয় ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম বিষয়ক একটি প্রদর্শনী ‘ইমেজ অফ রেজিসটেন্স, সেলিব্রেটিং সেভেন্টি ফিফ্থ ইয়ার অফ ন্যাশনাল ইন্ডিপেন্ডেন্স’। ছিলেন প্রাক্তন পুলিশকর্তা সন্ধি মুখোপাধ্যায়, গবেষিকা, অধ্যাপিকা, বিপ্লবী সুনীতি চৌধুরীর কন্যা ডঃ ভারতী সেন প্রমুখ।

* রবীন্দ্র জন্মবার্ষিকী এবং শ্রীঅরবিন্দের জন্ম-সার্ধশতবর্ষ উপলক্ষে আকাশবাণী কলকাতা কেন্দ্র থেকে ৩০শে মে প্রচারিত হয় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অর্থ দফতরের আধিকারিক, গবেষক ও কলকাতার শ্রীঅরবিন্দ ভবনের অন্যতম ট্রাস্টি বিশ্বজিৎ গাঙ্গুলির কথিকা ‘রবীন্দ্রনাথ ও শ্রীঅরবিন্দ’।

* গত ১৭ জুন স্টার সিটি মলের ‘স্টারমার্ক‘-এ এক অনুষ্ঠানে প্রকাশিত হল স্বাধীনতা সংগ্রামের তরুণ চর্চাকারী প্রসূণ রায়ের লেখা ‘এ সামুরাই ড্রিম অফ আজাদ হিন্দ, রাসবিহারি বোস’।

ছবি: রাসবিহারি বসুর বইয়ের আবরণ উন্মোচন।

* জুলাইয়ের প্রথমদিকে দমদমের নাট্যদল রবীন্দ্রনগর নাট্যায়ুধ পরিবেশিত করে তাঁদের নয়া প্রযোজনা ‘মাষ্টারদা ১৯৩০’।

* স্বাধীনতার ৭৫ তম ‘অমৃত মহোৎসব’ উপলক্ষে, ২১ জুলাই স্বাধীনতা ও দেশ ভাগের ৭৫ বছর বিষয় এর ওপর একটি এক আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘মাকাইয়াস’ (মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইনস্টিটিউট অফ এশিয়ান স্টাডিজ), ‘বঙ্গ বিদ্যার্থী‘ ও ‘শোধ’-এর (স্টুডেন্ট ফর হোলিসটিক ডেভেলপমেন্ট অফ হিউমিনিটি ফাউন্ডেশন)। উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডক্টর অচিন্ত্য বিশ্বাস (প্রাক্তন উপাচার্য গৌড় বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়), ডক্টর মোহিত রায় (পরিবেশবিদ এবং সমাজ ত্বাত্বিক গবেষক), ডক্টর স্বরূপ প্রসাদ ঘোষ (অধিকর্তা মাকাইয়াস), বলরাম দাস রায় মহাশয় (রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ পূর্ব ক্ষেত্র বৌদ্ধিক প্রমুখ), মনোরঞ্জন জোদ্দার (অধ্যাপক বঙ্গবাসী কলেজ), শ্রীনিবাস মহাশয় পূর্ব ক্ষেত্র এবং (উত্তর পূর্ব ক্ষেত্র সংগঠন সম্পাদক, ভারতীয় কিষান সংঘ)।

ছবি: ২১ জুলাই মাকাইয়াস-এ আলোচনাসভা।

বিপ্লবতীর্থ চট্টগ্রাম স্মৃতি সংস্থা রবিবার ২৪ জুলাই (১০-২ টো) চিকিৎসা শিবিরের আয়োজন করে। স্বাধীনতা ৭৫ স্মরণে, আগামীতে রয়েছে তাদের আরও অনুষ্ঠান। শ্রীঅরবিন্দ ভবন, বেলেঘাটা গান্ধী ভবন— পরিকল্পনা আছে এদেরও। বারাকপুরের গান্ধী স্মারক সংগ্রহশালা বসে আঁকো প্রতিযোগিতা করবে। তার আবেদনপত্র ২৫ জুলাই থেকে ৭ আগস্ট বিলি হবে সংগ্রহশালা থেকে।

মেদিনীপুর থেকে প্রকাশিত ‘দক্ষিণবঙ্গ সংবাদ’ গত বছর ১৫ আগস্ট স্মরণে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছিল। এবারেও তাদের তরফে এরকম একটি সংখ্যা প্রকাশের পরিকল্পনা রয়েছে।
***

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here