মানসিক অবসাদে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী এক ব্যক্তি

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, ২৪ সেপ্টেম্বর: একমাত্র সম্বল দেড় বিঘা জমি বিক্রি করলেও নিজের চিকিৎসা আর অপারেশন করার খরচ জোগাড় হবে না। মানসিক অবসাদ থেকে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হলেন কিডনি রোগে আক্রান্ত এক ব্যক্তি। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহার ব্লকের বলরামপুর গ্রামে। মৃত ব্যক্তির নাম ঈশ্বর পাল (৬৫)। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ গভর্মেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইটাহার থানার পুলিশ। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলরামপুর গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে কিডনির জটিল অসুখে ভুগছিলেন ইটাহার ব্লকের বলরামপুর গ্রামের বাসিন্দা দিনমজুর ঈশ্বর পাল। রায়গঞ্জ গভর্মেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মালদা, শিলিগুড়ি এমনকি কলকাতার নীল রতন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়েও তাঁর অসুখ সারেনি। এরপর তিনি দক্ষিণ ভারতের ব্যাঙ্গালোরে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। সেখানকার চিকিৎসকেরা তাঁকে অপারেশন করার কথা বলেন। এরজন্য সাড়ে চার লক্ষ টাকা লাগবে বলে জানানো হয়। এরপর ইটাহারের বাড়িতে ফিরে আসেন তিনি। হতদরিদ্র পরিবারের সহায় সম্বল বলতে মাত্র দেড় বিঘা জমি ছিল তাঁদের। সেই জমি বিক্রি করলেও অপারেশন সহ চিকিৎসার খরচ জোগার সম্ভব হচ্ছিল না। আর জমিটা বিক্রি করে দিলে তাঁর পরিবারের চলবে কিভাবে এই চিন্তা থেকে মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকেন দিনমজুর ঈশ্বর পাল। বুধবার রাতে বাড়ির পাশে একটি গাছে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হন ঈশ্বর। নিজেকে শেষ করে দিয়ে পরিবারকে বাঁচানোর জন্য আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন তিনি এমনটাই ধারনা তাঁর আত্মীয় পরিজনদের। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ানোর পাশাপাশি বলরামপুর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here