১০ বছর পর হারিয়ে যাওয়া এক ব্যক্তিকে ঘরে ফেরাল বনগাঁর এক চিত্র সাংবাদিক

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৯ সেপ্টেম্বর: প্রায় দশ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তির সন্ধান মিলল বাড়ি থেকে প্রায় ১৩০০ কিলোমিটার দূরে উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ হাসপাতালের বেডে। ওই ব্যক্তির ছেলেরা যখন তাঁদের বাবাকে ফিরে পাওয়ার সব আশাই ছেড়ে দিয়েছিল, ঠিক সেই সময় তারা পেল বাবার হদিশ। নিখোঁজ ব্যাক্তির নাম বাদ্রী প্রাসাদ।

স্থানীয় সূত্রের খবর, গত বুধবার সকাল থেকে এক ভবঘুরে চিত্র সাংবাদিক চঞ্চল পালের পিছু নেই। খিদের জ্বালায় কাহিল হয়ে পড়েছে। দেখলে মনে হবে দুই- তিনদিন তার পেটে কিছুই পড়েনি। বনগাঁ থানার পাশে একটি দোকান থেকে খাবার কিনে দেয় চঞ্চলবাবু। দুপুরেও তাঁর খাবারের ব্যবস্থা করেন তিনি। বুঝতে পারেন মানসিক দিক থেকে স্থিতিশীল নন ওই ব্যক্তি। এরপর স্থানীয় বাসিন্দা দীপক শিকদারের সাহায্য নিয়ে তাকে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসা শুরু হতেই তাঁর বাড়ির কথা জিজ্ঞাসা করলে ঠিকঠাক ঠাকানা বলেন। ঠাকানা শুনেই দীপকবাবু বলেন ওই ঠাকানায় আমার এক আত্মীয়ার বাড়ি। সেখানেই যোগাযোগ করে জানা যায় সঠিক পরিচয়। শনিবার বনগাঁ হাসপাতাল থেকে পরিবারের হাতে তাকে তুলে দেওয়া হয়।

চঞ্চলবাবু বলেন, ওই ব্যাক্তির ছেলের মোবাইলে ফোন করে জানতে পারি মধ্যপ্রদেশের অনুপপুর জেলার অমরকন্ঠপুর এলাকার বাসিন্দা বাদ্রি প্রসাদ। ১০ বছর আগে ট্রেনে করে ছেলেকে নিয়ে জম্বুতে কাজ করতে যাচ্ছিলেন। ট্রেন থেকে নেমে কিছু খাবার কিনতে গেলে ট্রেন ছেড়ে দেয়। তারপর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় বাদ্রী।

পরিবারের কথায় যানা যায়, সংসারে অর্থের অভাবে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন বাদ্রী। ট্রেন থেকে নামার পর নিখোঁজ হয়ে যায়। আমরা সমস্ত জায়গায় খোঁজ করেছি। কিন্তু কোনও হদিশ করতে পারিনি।” চঞ্চলবাবুর ফোন এবং দীপকবাবুর আত্মীয়দের কাছ থেকে জেনেই চলে এসেছি বাবাকে নিতে। বাবাকে ফিরে পেয়ে খুশি বাদ্রী প্রসাদের পরিবার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here