বীরকন্যা প্রীতিলতার নামে বাংলাদেশে সড়ক, দুই বাংলায় স্মৃতিসভা

অশোক সেনগুপ্ত, আমাদের ভারত, ২৫ সেপ্টেম্বর: অগ্নিকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের নামে চিহ্ণিত করা হল বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এই সঙ্গে তাঁর প্রয়াণ দিবসে কলকাতা ও চট্টগ্রামে পৃথক অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধা জানানো হয় এই অমর বিপ্লবীকে।

পটিয়া-বোয়ালখালী (কানুনগোপাড়া) সংযোগ জেলা মহাসড়কের নাম রাখা হয়েছে ‘প্রীতিলতা সড়ক’। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের দোহাজারী সড়ক বিভাগের অধীন এই রাস্তার নামকরণ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়েছে।

বীরকন্যা প্রীতিলতা ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পংকজ চক্রবর্তীকে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, ১২ কিলোমিটার অংশের ৮ কিলোমিটারের এই নামকরণের সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যে ঘোষিত হয়েছে। ওই সড়কের বাকি ৪ কিলোমিটারেরও একই নাম রাখার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তর বিবেচনা করছে।

বিপ্লবতীর্থ চট্টগ্রাম স্মৃতি পরিষদের সহ সভাপতি তপনবিকাশ দত্ত রবিবার এখবর জানিয়ে এই প্রতিবেদককে বলেন, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ছিল বীর বিপ্লবী প্রীতিলতার আত্ম বলিদান দিবস। এই উপলক্ষে তাঁর বাড়িতে এবং বীরকন্যা প্রীতিলতা ট্রাস্টে পৃথক অনুষ্ঠানে অগ্নিকন্যাকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়। কলকাতা ময়দানে বীরকন্যার পূর্ণমূর্তিতে পুষ্পস্তবক দিতে পরিষদের প্রবীন কিছু সদস্য ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী শশী পাঁজা।

প্রসঙ্গত, প্রীতিলতা ১৯১১ সালের ৫ মে চট্টগ্রামের  বর্তমান পটিয়া উপজেলার ধলঘাট গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। সূর্য সেনের নেতৃত্বে একটি বিপ্লবী দলে যোগ দিয়ে প্রীতিলতা পাহাড়তলী ইউরোপিয়ান ক্লাবে ১৯৩২ খ্রিষ্টাব্দের সশস্ত্র আক্রমণে অংশ নেন। নেতৃত্ব দেন ১৫ জনের একটি বিপ্লবী দলের। সংঘর্ষে একজন নিহত ও ১১ জন আহত হয়। বিপ্লবীরা ক্লাবে অগ্নিসংযোগ করে এবং পরে ঔপনিবেশিক পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। গ্রেফতার এড়াতে প্রীতিলতা সায়ানাইড খেয়ে আত্মহত্যা করেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here