ইট ভাটায় কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু সাত বছরের কিশোরের

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ১১ মে:
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল এক ৭ বছরের কিশোরের। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সাত সকালে নদিয়ার রানাঘাট থানার পায়রাডাঙ্গার শিবপুর সোনা নামক একটি ইটভাটায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিহারের বাসিন্দা লব পাসোয়ান (৭) ওই কিশোর তার বাবা মায়ের সাথে থাকতেন ওই ইট ভাটায়। মাঝে মধ্যে বাবা মায়ের সাথে ইট ভাটারও কাজ করত বলে জানা যায়। সকালে ওই ইটভাটা সংলগ্ন রাস্তার ধারে একটি টিউবয়েল থেকে পানীয় জল আনতে গিয়ে বিপত্তি ঘটে। সূত্রের খবর, জল আনতে গিয়ে কোনওক্রমে বিদ্যুতের তার লেগে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পড়ে ওই কিশোর। এরপর স্থানীয় ইটভাটার শ্রমিক সহ অন্যন্য লোকজন ছুটে এসে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। খবর দেওয়া হয় রানাঘাট দমকল বিভাগকে কিন্তু তারা সঠিক সময়ে না পৌছানোয়, খবর পেয়ে আগেই ছুটে আসে রানাঘাট থানার পুলিশ কর্মীরা। তড়িঘড়ি ওই গুরুতর আহত কিশোরকে লউদ্ধার করে রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এরপর মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য পুলিশ মর্গে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় ফের প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে রাজ্যের বিভিন্ন ইটভাটার পরিযায়ী শ্রমিক ও তাদের পরিবারের সুরক্ষা নিয়ে।

এখনও নজর দিলে দেখা যায় ভিন রাজ্যে থেকে ইট ভাটায় কাজে আসা শ্রমিকরা তাদের সন্তানদের দিয়ে কাজ করান।ভ্রুক্ষেপ নেই প্রশাসনের।বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে এভাবে বিভিন্ন ইটভাটার মালিকরা কি তাদের দায় এড়াতে পারেন।

এবিষয়ে রানাঘাট হাসপাতাল সুপার শ্যামল পোড়ে এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা অনেকে ক্যামেরার সামনে মুখ খুলতে চাননি। তবে রানাঘাট বিদ্যুৎ দপ্ততের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন ওই এলাকার মানুষজন। পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে রানাঘাট থানার পুলিশ। তবে এবিষয়ে অনেকে মুখে কুলুপ এটেছে। প্রশ্ন উঠছে বেআইনি ইটভাটার লাইসেন্স এবং বেআইনি মাটি কারবারীদের নিয়ে। কোভিড পরিস্থিতিতে এভাবে একটি তরতাজা কিশোরের প্রাণ চলে যাওয়ায় আতঙ্কিত ইট ভাটার অন্যন্য শ্রমিক ও তাদের পরিবার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here