স্কুলে একজন পড়ুয়া ও একজন শিক্ষক, রায়গঞ্জে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর কেন্দ্রে সাহাপুর এফপি প্রাথমিক স্কুলের করুণ পরিস্থিতিতে উদ্বেগ শিক্ষা মহলে

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ১৮ আগস্ট: স্কুল আছে কিন্তু পড়ুয়া মাত্র একজন। আবার উল্টোদিকে স্কুলে ওই একজন পড়ুয়ার জন্য শিক্ষক আছেন মাত্র একজন। স্কুলে মিড ডে মিলও বন্ধ হয়েছে বহুদিন থেকেই। ফলে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লকের রামপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সাহাপুর এফপি স্কুলের তালা বন্ধ থাকে সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিন দিন। এমতাবস্থায় পরিত্যক্ত স্কুলটিতে সাপ, পোকামাকড়ের উৎপাত বেড়েই চলেছে। উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক সত্যজিৎ বর্মন সদ্য শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন। তার কেন্দ্রেই অবস্থিত এই সাহাপুর এফপি প্রাথমিক স্কুলের শোচনীয় পরিস্থিতিতে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে শিক্ষা মহলে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, এই প্রথামিক বিদ্যালয়ে আগে এলাকার প্রায় সমস্ত ছেলে মেয়েরাই পড়াশোনা করেছে। কিন্তু কয়েক বছর ধরে স্কুলটি প্রায় বন্ধের মুখে। যে একমাত্র শিক্ষক রয়েছেন তিনিও নানা কাজে ঠিকমতো স্কুলে আসতে পারেন না।

উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রাইমারি স্কুলের রায়গঞ্জ নর্থ সার্কেলের বিদ্যালয় পরিদর্শক কল্যাণী ওরাও টেলিফোনে জানিয়েছেন, এব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তাদের নির্দেশ মেনেই পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার মধুরিমা রায় নামে একজন ছাত্রী চতুর্থ শ্রেণিতে পড়াশোনা করছে। মাস খানেক আগেও দু’জন পড়ুয়া ছিল। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, স্কুলটিতে শিক্ষক ঠিক মত না থাকায় অনেকটা দূরে অবস্থিত একম্বা সাহাপুর প্রাইমারি স্কুলে তাঁদের বাচ্চাদের পাঠাতে বাধ্য হচ্ছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here