বর্ষবরণের রাতে পর পর দু’বার ধর্ষণের শিকার কালিয়াগঞ্জের এক যুবতী

আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ২ জানুয়ারি: বর্ষবরণের রাতে গণধর্ষণেরে শিকার হল কালিয়াগঞ্জের হরিহরপুর এলাকার এক যুবতী। ২৭ বছর বয়সী ওই যুবতীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে জোরকরে মদ খাইয়ে ধর্ষণ করে। এরপর ধর্ষকরা তাঁকে ছেড়ে দিলে ফের এক গাড়ি চালক তাঁকে ধর্ষণ করে। রাত তিনটে নাগাদ তাঁকে উদ্ধার করে বাড়ির লোকজন।

জানাগেছে, কালিয়াগঞ্জের ধনকৈল মোড়ে এক হোটেলে কাজ করেন ওই যুবতী। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ হোটেলের কাজ সেরে হেঁটে বাড়ি ফেরার সময় ধনকৈল এলাকার বাসিন্দা সুজন বর্মণ ও শিবু বর্মণ মেয়েটিকে রাস্তা থেকে তুলে পার্শ্ববর্তী ধনকৈল মিনি ব্যাঙ্কের পাশে নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটিকে জোর করে মদ্যপান করিয়ে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। মেয়েটি সেখান থেকে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিলে এক গাড়ির চালক নকুল মহন্ত(৪২) জোর করে রাস্তা থেকে মেয়েটিকে নিজের গাড়িতে তুলে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ ধর্ষিতার পরিবারের।

ধনকৈল মোড়ের মাথায় বসে কাঁদতে থাকে মেয়েটি। বাড়ি না ফেরায় বাড়ির লোকজন মেয়ের খোঁজ করতে থাকে। খুঁজতে খুঁজতে রাত ৩টা নাগাদ মেয়েটির মায়ের নজরে আসে ধনকৈল মোড়ে বসে কাঁদছে মেয়েটি। মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে। অভিযোগ পেয়েই সঙ্গে সঙ্গে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ শিবু বর্মণ ও নকুল মহন্তকে গ্রেপ্তার করে। বৃহস্পতিবার দুজনকে রায়গঞ্জ জেলা আদালতে তোলা হয়। ধৃত দুই দুষ্কৃতিকে পাঁচ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ আদালত।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here