এরাজ্যে নবাগত বিজেপি নেতারা তাঁদের মনিব হওয়ার চেষ্টা করছেন, অভিযোগ এবিভিপির

এরাজ্যে নবাগত বিজেপি নেতারা তাঁদের মনিব হওয়ার চেষ্টা করছেন, অভিযোগ এবিভিপির

চিন্ময় ভট্টাচার্য 

আমাদের ভারত, ১২ সেপ্টেম্বর: তারা রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের ছাত্র সংগঠন। বিজেপি নেতাদের কথা শুনে চলতে বাধ্য নন। এই সোজা কথাটা অন্য দল থেকে আসা বিজেপি নেতাদের নাকি পইপই করে বোঝাতে পারছেন না এবিভিপি নেতৃত্ব। অখিল ভারতী বিদ্যার্থী পরিষদের নেতাদের অভিযোগ, তাঁরা বোঝাতে চেষ্টা করলেও বুঝতে চাইছেন না বিজেপির স্থানীয়স্তরের নেতারা। বর্তমানে জেলায় জেলায় বিজেপির স্থানীয় স্তরের পুরনো নেতারা কার্যত কোণঠাসা। সেখানে সংঘের থেকে উঠে আসা নেতা ও কর্মীদের কার্যত গুরুত্বহীন করে দিয়েছেন অন্য দল থেকে আসা বিজেপির নেতা ও কর্মীরা। এমনই অভিযোগ এবিভিপি ও সংঘের নেতাদের একাংশের। তাঁদের আরও অভিযোগ, আগে শুধু অন্য দল থেকে আসা নেতাদের উপহাস, কটাক্ষ আর সমালোচনা সহ্য করতে হচ্ছিল। এবার বিভিন্ন এলাকায় মারধরও জুটছে। 

যেমন নদিয়া জেলার কথাই ধরা যাক। এই জেলায় নাকি ক্ষমতায় আসতে না-আসতেই, সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছে বিজেপি-এবিভিপি। সম্প্রতি, নদিয়ার মাজদিয়া কলেজে আন্দোলন করে রাজ্যস্তরে সাড়া ফেলেছে এবিভিপি। কিন্তু, সেখানেও নাকি এবিভিপির কর্মীদের পদানত করে এলাকায় নিজেদের ক্ষমতা দেখাতে উঠেপড়ে লেগেছেন বিজেপির বিভিন্নস্তরের নেতারা। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় বেশ কিছুদিন ধরেই হুমকি সহ্য করতে হচ্ছিল স্থানীয় এবিভিপি নেতৃত্বকে। কিন্তু, তাতে ঘটনার রেশ থেমে থাকেনি। এবিভিপি নেতাদের অভিযোগ, কয়েকদিন আগেই তাঁদের এক ছাত্রনেতা বাড়ি ফেরার সময়, তাঁকে ব্যাপকভাবে মারধর করেছেন স্থানীয় বিজেপি নেতা-কর্মীরা। সেই পদানত করার চেষ্টা এবং প্রতিবাদের মাশুল হিসেবে এই ঘটনা ঘটেছে বলেই অভিযোগ। ঘটনার জেরে, দু’দিন হাসপাতালে ভর্তিও ছিলেন ওই এবিভিপি নেতা। 

এই ঘটনা সংঘ পরিবারের রাজ্যস্তরে রীতিমতো সাড়া ফেলে দেয়। বিভিন্নভাবে বিষয়টি বুঝিয়ে চেপে রাখার চেষ্টাও হয় বলে অভিযোগ। এবিভিপি নেতৃত্ব জানিয়েছেন, তাঁরা উচ্চস্তরের নেতাদের পরামর্শ তথা নির্দেশে প্রথমে বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু, আক্রান্ত ছাত্রের পরিবার গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্রতিবাদ জানাতে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। এবিভিপি নেতাদের আরও অভিযোগ, এতে প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে, এবিভিপির মাজদিয়া কলেজ ইউনিটের পাঁচ জন সদস্যের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন অভিযুক্ত বিজেপি নেতারা। এতে চরম অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি এবং এবিভিপি উভয় সংগঠনই। সংঘ থেকে আসা বিজেপি ও এবিভিপি নেতারা জানিয়েছেন, গোটা ঘটনায় স্থানীয় সিপিএম ও তৃণমূল নেতা-কর্মীদের থেকে তাঁদেরকে উপহাস শুনতে হচ্ছে। 

সূত্রের খবর, এরকম ভুরিভুরি অভিযোগ ইদানিং সংঘ পরিবারের রাজ্যস্তরে জমা পড়ছে। কিন্তু, কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের চাপে অসহায় রাজ্য নেতারা সংগঠনের নিচুতলার কর্মীদের সব মুখ বুজে সহ্য করার বার্তা দিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, সংবাদমাধ্যমের কাছে দলগত সংহতি প্রমাণ করতে, ‘সর্বভারতীয় দলে’, ‘বড় দলে এরকম দু’একটা ঘটনা ঘটেই’ মার্কা বড় বড় বিবৃতিও নাকি গোটা সংঘ পরিবারের রাজ্য নেতারা দিচ্ছেন। এই অসহায় পরিস্থিতিতে তাঁরা রাজনৈতিক হতাশায় ভুগছেন বলেই সংঘ থেকে আসা বিজেপি নেতা ও এবিভিপির নেতাদের অভিযোগ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 5 =

amaderbharat.com

Welcome To Amaderbharat.com, Get Latest Updated News. Please click I accept.