বনগাঁ হাসপাতাল কর্মীদের গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যুর পর নড়েচড়ে বসল প্রশাসন

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, বনগাঁ, ২৭ জুলাই: হাসপাতাল কর্মীদের চরম গাফিলতিতে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুর পর নড়েচড়ে বসল প্রশাসন। শনিবার রাতে উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসার অভাবে ও কর্মীদের অবহেলায় মৃত্যু হয়েছে বনগাঁর এক মুদি ব্যবসায়ী মাধব নারায়ণ দত্তের। হাসপাতাল কর্মীদের কোনও সাহায্য না পেয়ে হাসপাতালের বাইরে মৃত্যু হয় নারায়ণবাবুর। এছাড়া জ্বর শ্বাসকষ্টে রোগীর মৃত্যু হলে করোনা পরীক্ষা না করেই হাসপাতাল থেকে দেহ ছেড়ে দিচ্ছে, রোগীর আত্মীয়দের এমনই অভিযোগ সুপারের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বনগাঁ এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়।

সোমবার বনগাঁ হাসপাতাল সুপার শঙ্কর কুমার মাহাতো একটি চারজনের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। ইতিমধ্যেই বনগাঁ মহাকুমা হাসপাতালে জ্বরে অসুস্থ হওয়ার রোগীদের জন্য আলাদাভাবে একটি নতুন ইউনিট চালু হতে চলেছে। ৩০ বেডের ফিভার ইউনিটে জ্বর সর্দি-কাশি নিয়ে যারা হাসপাতালে আসবেন সাধারণ রোগীদের সাঙ্গে না রেখে তাদেরকে এই বিশেষ ইউনিটে ভর্তি করা হবে। বনগাঁ মহাকুমা এলাকায় এখনও পর্যন্ত ১৪৫ জন মানুষ করোনা আক্রান্ত। ফলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আলাদা একটি ফিভার ইউনিট চালু করছে। জ্বর হওয়া ও সম্ভব্য করোনা সন্দেহ রোগীদের জন্য আলাদা ইউনিট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ইতিমধ্যেই ওই বিভাগের সমস্ত প্রস্তুতি শেষ হয়েছে।

অভিযোগ, স্বীকার করে নিয়ে হাসপাতাল সুপার শঙ্করবাবু জানিয়েছেন, হাসপাতালে এতো কর্মী থাকতে কেন কেউ সাহায্য করেনি। যদিও ঘটনা জানার পর আমি চারজনের একটি দল করে তদন্ত করার জন্য বলেছি। যদি কেউ ইচ্ছা করে এই কাজ করে থাকে অবশ্যই তাকে শাস্তি পেতে হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here