আমতায় তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ

আমাদের ভারত, হাওড়া, ১৯ মে: দীর্ঘদিন গ্রামের বাইরে থাকা এক তৃণমূল কর্মী গ্রামে ফেরার দু’দিনের মধ্যে তাকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল দুস্কৃতীদের বিরুদ্ধে। মৃত তৃণমূল কর্মীর নাম সমীর খাড়া (৪৫)। বাড়ি আমতা থানার চন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ হরিশপুর গ্রামের দুলেপাড়ায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকেই পঞ্চায়েতের দখল নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে চন্দ্রপুর। এরপরেই শাসক দলের ৭ জয়ী সদস্য সহ প্রায় ৩০০ জন গ্রামবাসী গ্রামছাড়া হয়ে যায়। দীর্ঘদিন এইসব গ্রামবাসী ঘড়ছাড়া থাকার পর সম্প্রতি স্থানীয় বিধায়ক ডা: নির্মল মাজির উদ্যোগে গ্রামে ফেরার প্রস্তুতি নেয়। গত শনিবার পুলিশের ঘেরাটোপে ঘড়ছাড়ারা গ্রামে ফেরে।গ্রামবাসীদের অভিযোগ, সোমবার রাতে কয়েকজন দুস্কৃতী সমীরকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাকে পিটিয়ে খুন করে পালিয়ে যায়।

এদিকে সমীর খুন হওয়ার পরেই উত্তেজনা ছড়ায় গ্রামে। রাতেই গ্রামে পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী, নামানো হয় র‍্যাফ। ঘটনাস্থলে পৌছায় পুলিশ আধিকারিকরা। রাতেই অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়। মৃত তৃণমূল কর্মীর পরিবারের অভিযোগ, পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকেই স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান শেখ ফারুক মল্লিকের ঘনিষ্ঠ লোকেরা গ্রামে অত্যাচার শুরু করে। তাদের দাবি, সমীরকে ওরাই খুন করেছে। যদিও ফারুকের বক্তব্য এটা পারিবারিক বিবাদের ঘটনা। এর সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক নেই। তার নামে মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে।

অন্যদিকে দলীয় কর্মী খুন হওয়া প্রসঙ্গে তৃণমূলের হাওড়া গ্রামীণ জেলা সভাপতি পুলক রায় জানান, এলাকায় অশান্তি পাকানোর লক্ষ্যে বিজেপি আশ্রিত দুস্কৃতীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি জানান, পুলিশকে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নিতে বলা হয়েছে। যদিও বিজেপির হাওড়া গ্রামীণ জেলার সাধারণ সম্পাদক প্রত্যুষ মন্ডল দাবি করেন, এটা তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দের ফল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here