নিকাশিনালার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ প্রধানের বিরুদ্ধে

আশিস মণ্ডল, রামপুরহাট, ২৮ সেপ্টেম্বর: হয়নি নিকাশিনালা। কিন্তু উঠে গিয়েছে লক্ষাধিক টাকা। এমনই অভিযোগ উঠেছে বীরভূমের মুরারই ২ নম্বর ব্লকের নন্দীগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধানের স্বামী, শিক্ষক মহম্মদ নুরুল হোদা।

জানাগিয়েছে, নন্দীগ্রাম অঞ্চলের কাঠিয়া গ্রামে হাসিবুল শেখের বাড়ি থেকে সালিমুদ্দিন শেখের বাড়ি পর্যন্ত প্রায় ১২০ মিটারের একটি নিকাশিনালা রয়েছে। ওই নালা কংক্রিটের করার জন্য পঞ্চায়েতে আবেদন করেন সালামুদ্দিন শেখ। সেই মতো পঞ্চায়েত ওই নিকাশিনালা নির্মাণের জন্য এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেন। অভিযোগ, নালা নির্মাণ না করে সেই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। ফলে এলাকার মানুষের একই দুর্দশা।

সালামুদ্দিন শেখ বলেন, “ভারি বৃষ্টি হলেই আমার বাড়ির সামনে ময়লা জমে। তাই আমি পঞ্চায়েতে আবেদন জানিয়েছিলাম। পঞ্চায়েত আবেদনের ভিত্তিতে ওই নালার জন্য এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ করে। পরে জানতে পারলাম কাজ না করেই ওই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। হাসিবুল শেখ বলে নিকাশিনালা হয়নি। টাকা উঠে গিয়েছে। ফলে বৃষ্টিতে জল ছাপিয়ে ঘরের মধ্যে ঢুকছে। রাস্তায় নোংরা উঠছে”।

পঞ্চায়েত প্রধান নাজরিন সুলতানার স্বামী মহম্মদ নুরুল হোদা বলেন, “মার্চ মাসে বেশ কয়েকটি কাজের তালিকা বের হয়েছিল। তাতে ওই নিকাশিনালাও ছিল। কিন্তু ভুল করে ওই নালা অন্য জায়গায় করা হয়েগিয়েছে। নতুন করে টেন্ডার করে ওই নালা গড়া হবে”। এনিয়ে মুখ খুলতে চাননি বিডিও অমিতাভ বিশ্বাস। মিটিংয়ে ব্যস্ত আছে বলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। তারপর আর ফোন ধরেননি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here