বিয়ে করতে বলায় যুবতীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

আমাদের ভারত, মালদা, ১৭ জুলাই: দীর্ঘদিন ধরে সহবাসের পর বিয়ে করতে অস্বীকার। আর এই নিয়ে প্রতিবাদ করায় যুবতীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার কালিয়াচক থানার মানিকটোলার দুইশতবিঘি গ্রামে।

স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েও পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় অসহায় পরিবার পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছে সুবিচারের আশায়।

জানাগেছে, প্রতিবেশির সুবাদে স্থানীয় যুবক চন্দন মন্ডলের সঙ্গে ওই যুবতীর পরিচয় হয়। এরপর থেকে যুবতীর বাড়িতে অবাধ যাতায়াত শুরু হয় চন্দন মন্ডলের। যুবতীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে নিয়ে যায় ও সহবাস করে বলে অভিযোগ। কিন্তু বিয়ের কথা বলতেই বেক্বকে বসে। অভিযোগ, কয়েকদিন আগে হঠাৎ চন্দন মন্ডল মেয়েটির পরিবারের সদস্যদের অবর্তমানে জোর করে মুখে কাপড় গুঁজে তুলে নিয়ে যায়। এরপর ধর্ষণ করে। মেয়েটি কোনও রকমে সেখান থেকে পালিয়ে আসে। ঘটনা জানতে পেয়ে ছেলের পরিবারের সদস্যরা যুবতী ও তার পরিবারকে গালিগালাজ প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ। ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসনকে জানালেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। আতঙ্কে লুকিয়ে থাকতে হচ্ছে ওই পরিবারকে। ঘটনার পর থেকে পলাতক যুবক। বাধ্য হয়ে পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছে পরিবার। ওই যুবতী ও তার পরিবার যুবকের কঠোর শাস্তির দাবি করেছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here