বিকেল ৪ টা- ৬টার মধ্যে আছড়ে পড়বে আমফান, দীঘা থেকে ১২৫ কিমি দূরে অতি শক্তিশালি ঘূর্ণিঝড়

আমাদের ভারত, ২০মে: প্রবল গতিতে রাজ্যের দিকে এগিয়ে আসছে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আমফান।
সাগর থেকে মাত্র ৯০ কিলোমিটার আর কলকাতা থেকে ১৯০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে আমফান। দীঘা থেকে ১২৫ কিলোমিটার দূরে রয়েছে এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়। দক্ষিণ ও দক্ষিণ পশ্চিম দিকে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড়টি। বিকেল চারটে থেকে ছয়টার মধ্যে বাংলার বুকে আছড়ে পড়তে পারে আমফান জানা যাচ্ছে উপগ্রহ চিত্রের পর্যবেক্ষণ চিত্র অনুযায়ী।

তবে বুধবার সকালে কিছুটা শক্তি হারিয়েছে আমফান। সুপার সাইক্লোন থেকে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে আমফান। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে কলকাতা থেকে এই মুহূর্তে ১৯০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড়টি। একাধিক জেলা সহ কলকাতাতে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে ব্যপক বৃষ্টি।

আমফানের দাপটে জেলা ও কলকাতা শহরেও বহু জায়গায় তুমুল বৃষ্টি হচ্ছে। বইছে প্রবল বেগে ঝড়। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু জায়গায় গাছ পড়ে গিয়েছে ঝড়ো হাওয়ায়। প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে উত্তর ২৪ পরগনা হুগলির বিভিন্ন জায়গায়। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী এই মুহূর্তে আমাদের কেন্দ্রে ঘূর্ণি ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬০ থেকে ১৭০কিলোমিটার। হাওয়ার সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৯০ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড়টি ক্রমশ উত্তর থেকে উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। দীঘা ও বাংলাদেশের হাতিয়ার মধ্যবর্তী কোন স্থানে এটি আছড়ে পড়বে এটি। ১৫৫/১৬৫ কিমি থেকে সর্বোচ্চ ১৮৫ কিলোমিটার বেগে স্থলভাগে আছড়ে পড়তে পারে এই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। আমফানের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হবে দীঘা সুন্দরবন বিস্তীর্ণ এলাকায় বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়াও স্থলভাগের ঢুকে উত্তর-উত্তরপূর্ব কলকাতার অভিমুখেও এগিয়ে আসতে পারে ঘূর্ণিঝড়।

ইতিমধ্যেই উপকূলীয় এলাকায় কয়েক লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কলকাতা পৌরসভায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সামগ্রিক পরিস্থিতির ওপর নজরদারি চালানো হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here