টার্গেট বাংলা জয় ! বাড়িতে শিক্ষক রেখে বাংলা শিখছেন অমিত শাহ

আমাদের ভারত,২ জানুয়ারি:২০২১ বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি। আর তার প্রস্তুতি এখন থেকেই নিতে শুরু করেছে পদ্ম শিবিরের চাণক্য অমিত শাহ। এবিষয়ে কারোর উপর ভরসা না করে সবটা নিজে বুঝে নিতে চাইছেন তিনি। ভোট প্রচারে পশ্চিমবঙ্গে ভাষা যাতে কোনওভাবে বাধার কারণ হয়ে না দাঁড়ায় এবং বাংলার মানুষের সঙ্গে একাত্ম হতে বাংলা ভাষা শিখছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সূত্রের খবর বাড়িতে শিক্ষক রেখে বাংলা শিখছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বক্তৃতা দেবার সময় বাংলায় কথা বলে বাংলার মানুষকে চমক দেওয়ার কথায় তাঁর মাথায় ঘোরাফেরা করছে। আর সেই জন্যই তিনি একজন বাংলার শিক্ষক নিয়োগ করেছেন। নিজে গুজরাটি হলেও হিন্দি বলতে যথেষ্ট পারদর্শী দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। জানা গেছে শুধু বাংলা নয়, আরোও চারটি ভাষা শিখছেন অমিত শাহ। তার মধ্যে রয়েছে তামিলও।

অনেকেই মনে করছেন সম্প্রতি মহারাষ্ট্র হরিয়ানা এবং ঝাড়খন্ড বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতে পারেননি পদ্মশিবির। হরিয়ানায় জোট করে সরকার করলেও মহারাষ্ট্র এবং ঝাড়খন্ডে সরকার গড়তে পারেনি বিজেপি। তাই পশ্চিমবঙ্গের মতো বড় রাজ্যকে দখল করে মরিয়া বিজেপি। আর তার জন্যই বিধানসভা নির্বাচনে কোনরকম খামতি রাখতে চাইছেন না অমিত শাহ। একইসঙ্গে বঙ্গ বিজেপি ঠিকমতো কাজ করছে কিনা সেটাও সবিস্তারে বুঝতে বাংলা শিখছেন অমিত শাহ। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠমহলের খবর, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের অনেক সময়েই মনে হয়েছে যে ভাষাগত সমস্যা তার কাছে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। বিজেপির রাজ্য কমিটি গুলি কি কাজ করছে ভাষা সমস্যার জন্য অনেক সময় তার কাছে পরিষ্কার হচ্ছে না। সেই কারণে নিজে বাংলা ভাষা শেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। অন্য কারোর উপর ভরসা না করে এবার সরাসরি নিজেই জেনে ও বুঝে নিতে চান সবটা। সরাসরি নিজে হাতে কলমে কাজ করতে চাইছেন তিনি।

একুশের বিধানসভা ভোটে মাত্র দেড় বছর বাকি। টার্গেট ২০০-র বেশি আসন পাওয়া। আর সেই লক্ষ্য পূরণে রণকৌশল নির্ধারণ করতে রাজ্য বিজেপি কমিটিতে বেশকিছু রদবদল করা হচ্ছে। এবার তার সঙ্গে অমিত শাহের বাংলা শেখাকে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

অন্যদিকে বাংলা ভাষায় জ্ঞান নিয়ে একাধিকবার বিজেপি নেতৃত্বকে বিরোধীদের আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে। শুনতে হয়েছে বাংলা ভাষা শিখে তারপর বাংলা জয়ের স্বপ্ন দেখুন। তাই হয়তো অমিত শাহ, নিজে বাংলা শিখে নিজের দলের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দলকে বার্তা দিতে চাইছেন বলেও মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here