“সমাজের দুর্বল অংশের সুরক্ষার জন্যই ধর্মান্তকরণ বিরোধী আইন প্রয়োজন”

আমাদের ভারত, ২৯ নভেম্বর: সমাজের দুর্বল অংশকে বাঁচাতে জোর করে ও ভুল বুঝিয়ে ধর্মান্তকরণ রুখতে নয়া আইন প্রয়োজন বলে শীর্ষ আদালতে জানালো কেন্দ্র সরকার। এক্ষেত্রে আর্থিক ও সামাজিকভাবে পিছিয়ে পড়াদের সুরক্ষার প্রসঙ্গ তুলে ধরে মোদী সরকার।

সরকারের তরফে বলা হয়েছে ধর্মীয় স্বাধীনতা মানে কাউকে জোর করে বা প্রতারণা করে ধর্মান্তরিত করা নয়। শীর্ষ আদালতের সরকার বলেছে সমাজের দুর্বল অংশের সুরক্ষার জন্যই ধর্মান্তর রুখতে আইন প্রয়োজন। বিশেষত যারা আর্থিক ও সামাজিকভাবে পিছিয়ে পড়েছে তাদেরকেই টার্গেট করা হচ্ছে ধর্ম পরিবর্তনের জন্য। জোর করে ভুল বুঝিয়ে নানা ভাবে ধর্মান্তকরণের ফাঁদে ফেলা হচ্ছে মহিলাদেরও।

প্রতারণামূলক ধর্মান্তর রুখতে কেন্দ্র রাজ্যগুলোকে কড়া নির্দেশ দেওয়া হোক এই মর্মে যে মামলা হয়েছিল তার শুনানি হয় সুপ্রিম কোর্টে। মামলাকারীর অভিযোগ ছিল ভয় প্রদর্শন, হুমকি, প্রতারণা, উপহার দেওয়া বা আর্থিক সুবিধার মাধ্যমে প্রলুব্ধ করার মত নানা উপায়ে ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে। কোন নির্দিষ্ট রাজ্য নয়, দেশজুড়ে এই সমস্যা, মাথা ছাড়া দিচ্ছে। অবিলম্বে এর মোকাবিলা প্রয়োজন। এমনটা চলতে থাকলে দেশ থেকে হিন্দুদের অস্তিত্বই মুছে যেতে পারে।

ইতিমধ্যে উত্তরপ্রদেশের চালু হওয়া ধর্মান্তর বিরোধী আইনে প্রথম সাজা দেওয়া ঘটনাও ঘটেছে। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসের ধর্মান্তর বিরোধী আইন পাশ হয়েছিল উত্তরপ্রদেশে। লাভ জেহাদের মোকাবিলায় এই পদক্ষেপ করা হয়েছিল। এই আইনে দোষীদের জন্য সর্বোচ্চ ১০ বছরে কারাদণ্ড দেওয়ার নির্দেশ রয়েছে।তবে যদি কেউ বিয়ে করে ধর্মান্তর করার চেষ্টা করে শুধুমাত্র সেক্ষেত্রেই সর্বোচ্চ সাজা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

‘মনেপ্রাণে হিন্দুত্ববাদী’দের কাছে অনুরোধ। আমাদের সাহায্য করুন। খুব আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে সাড়ে পাঁচ বছর ধরে ২৫ জন রিপোর্টার, বাংলায় একমাত্র আমরাই প্রতিদিন এই ধরণের খবর করছি। 🙏
ব্যাঙ্ক একাউন্ট এবং ফোনপে কোড:
Axis Bank
Pradip Kumar Das
A/c. 917010053734837
IFSC. UTIB0002785
PhonePay. 9433792557
PhonePay code. pradipdas241@ybl

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here