আরামবাগের বিজেপি নেতাকে রাজ্য অফিস থেকে ডেকে নিয়ে পুলিশি হেনস্থার অভিযোগ

আরামবাগের বিজেপি নেতাকে রাজ্য অফিস থেকে ডেকে নিয়ে পুলিশি হেনস্থার অভিযোগ

ছবি: রাজ্য বিজেপি দপ্তরে মুকুল রায়ের পাশে গেরুয়া পোশাকে বসে তপন রায়।

চিন্ময় ভট্টাচার্য

আমাদের ভারত, ১২ জুন: লোকসভা নির্বাচনে আরামবাগের দলীয় প্রার্থী তপন রায়কে পুলিশি হেনস্থার অভিযোগ করল বিজেপি। মঙ্গলবার রাজ্য বিজেপি দপ্তরে তপনবাবুকে পাশে বসিয়ে এই অভিযোগ করেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। আরামবাগের তৃণমূল প্রার্থী অপরূপা পোদ্দার ওরফে আরফিন আলির কাছে ১,২০০-র সামান্য বেশি ভোটে পরাজিত হয়েছেন তপনবাবু। একটা লোকসভা নির্বাচনে জয়-পরাজয়ের যা ব্যবধান থাকে, সেই তুলনায় এই মার্জিন অতি নগণ্য।

শুধু তাই নয়, গণনা চলাকালীন বহু জায়গায় তৃণমূল প্রার্থীর চেয়ে এগিয়েই ছিলেন তপনবাবু। রাজ্য বিজেপির ধারণা এতেই ঘুম উড়েছে তৃণমূলের। তাই হেনস্থা করা হচ্ছে তপনবাবুকে। মুকুল রায়ের অভিযোগ, তপনবাবুকে রাজ্য বিজেপি অফিস থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে জোড়াসাঁকো থানার পুলিশ। দলের তরফে এই অভিযোগ তুলে মুকুল রায় অভিযোগ করেন, এভাবেই গোটা রাজ্যে কার্যত পুলিশি সন্ত্রাস চালাচ্ছে শাসক দল তৃণমূল। তাঁর টিপ্পনি, ‘ভাগ্যিস! তপনকে গাঁজা মামলার মিথ্যে অভিযোগে ফাঁসানোর চেষ্টা করেনি পুলিশ।’

এই হেনস্তার অভিযোগের মধ্যেই মঙ্গলবার রাজ্য বিজেপি দপ্তরে এসে শিবির বদল করেন আরামবাগ লোকসভা কেন্দ্রের দুটি পঞ্চায়েতের সব সদস্য। যার ফলে, তালপুর এবং চাপাডাঙা, এই দুটি পঞ্চায়েত এবার বিজেপির দখলে এল। এর পাশাপাশি, মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদিকা গীতা হালদার, কলকাতা পুরসভার ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডের যুবনেতা প্রদীপ সরকার ও রাজ্যের বিভিন্ন ব্লকের তৃণমূল কর্মীরাও মঙ্গলবার রাজ্য বিজেপি দপ্তরে এসে দলবদল করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − 11 =