বিজেপির মিছিলে গুলি-বোমাবাজির অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে, ফের রণক্ষেত্র ভাটপাড়া

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৮ জুলাই: বিজেপির মিছিলে হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। মিছিল লক্ষ্য করে চলল গুলি এবং বোমা। শনিবার ফের নতুন করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন বিজেপির নেতাকর্মী জখম হয়েছেন। পুলিশ হামলায় বাধা না দিয়ে নীরব দর্শকের মতো আচরণ করে বলেই অভিযোগ বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের।

বিজেপি সূত্রে খবর, উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দলের মেঘনা জুটমিলের মোড়ে গেরুয়া শিবিরের কর্মী-সমর্থকদের জমায়েত হওয়ার কথা ছিল। তারপর ভাটপাড়া মোড় পর্যন্ত মিছিল করে যাওয়ার কথা ছিল তাদের। সে কারণে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নেতাকর্মীরাও জড়ো হতে শুরু করেছিলেন। অভিযোগ, বিজেপি কর্মীদের মেঘনা জুটমিল মোড়ে যেতে বাধা দেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। গাড়ি ভাঙ্গচুর করতে শুরু করেন তারা। নোয়াপাড়ার বিধায়ক সুনীল সিং, তাঁর ছেলে আদিত্য সিংয়ের উপর হামলা চালানো হয় বলেও অভিযোগ। এছাড়া শ্যামনগরের বিজেপি নেতা অরুণ ব্রহ্মের গাড়িতেও হামলা করা হয়। প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন ওই বিজেপি নেতা। তবে সেই সময় বেশ কয়েকজন তাঁর পিছু ধাওয়া করে বলে অভিযোগ। বিজেপির দাবি, গণ্ডগোল চলাকালীন এলাকায় বোমাবাজি শুরু হয়ে যায়। বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চলে।

এ প্রসঙ্গে বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, “রাজ্যস্তরের নেতারাও এই মিছিলে যোগ দেবেন বলেই স্থির ছিল। তৃণমূল নেতাকর্মীরা তাদেরও মেঘনা জুটমিল মোড়ে পৌঁছতে বাধা দেয়। তাদের উপরেও হামলা চালানোর চেষ্টা করা হয়। তৃণমূলের বোমাবাজিতে একজন কিশোর গুরুতর জখম হয়েছে।” পুলিশের ভূমিকাতেও বেজায় ক্ষিপ্ত অর্জুন সিং। তাঁর দাবি, “এলাকায় বোমাবাজি এবং গুলি চলাকালীন পুলিশ নীরব দর্শকের মতো দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে সব দেখেছে।”

উল্লেখ্য, দিনকয়েক আগে কাঁকিনাড়ার আর্যসমাজ মোড়ে এক তৃণমূল নেতা গুলিবিদ্ধ হন। অভিযোগ ওঠে অর্জুন সিংয়ের অনুগামীদের দিকে। এই ঘটনায় বারাকপুরের বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলাও রুজু হয়। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের বোমাবাজি এবং গুলিতে রণক্ষেত্র ভাটপাড়া।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here