যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বামপন্থী পড়ুয়াদের হাতে চুড়ান্ত হেনস্থার শিকার বাবুল সুপ্রিয়

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বামপন্থী পড়ুয়াদের হাতে চুড়ান্ত হেনস্থার শিকার বাবুল সুপ্রিয়

আমাদের ভারত,১৯ সেপ্টেম্বর: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় বামপন্থী পড়ুয়াদের হাতে চরম হেনস্থার শিকার হলেন বাবুল সুপ্রিয়। এবিভিপির নবীন বরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাকে ঘিরে গো- ব্যাক স্লোগান দেওয়া হয়। অভিযোগ তার চুল ধরে টানা হয়। জামা ছিঁড়ে যায়, ধাক্কাধাক্কিতে পড়ে যান বাবুল। কোনোভাবেই তাকে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেওয়া হবে না বলে বিক্ষোভ দেখান বিরোধী গোষ্ঠীর একদল পড়ুয়া।

বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এবিভিপি নবীন বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। সেই অনুষ্ঠানে সংগীতশিল্পী হিসেবে এসেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে পা দেওয়া মাত্রই উত্তেজনা ছড়ায় বিরোধী গোষ্ঠী একদল পড়ুয়া। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে বামপন্থী একদল পড়ুয়া। মন্ত্রীর নিরাপত্তারক্ষীর বেষ্টনী ভেঙে তার ওপর চড়াও হয় পড়ুয়ারা। ধাক্কা দিতে দিতে তিন নম্বর গেটের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে থাকে তারা বলে অভিযোগ। পড়ে যান বাবুল সুপ্রিয়। ছিড়ে যায় তার জামার কলার। রণক্ষেত্র চেহারা নেয় গোটা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর । বিক্ষোভরত এসএফআইয়ের ছাত্রদের নিজে শান্ত করার চেষ্টা করেন বাবুল নিজে। বলেন, ছাত্ররা কেন তৃণমূলের মত আচরণ করছে ,তাদের নেতা তো বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। ছাত্ররা জানান বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে তারা সম্মান করেন। মুহুর্মুহু স্লোগান চলতে থাকে বাবুল সুপ্রিয়কে ঘিরে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে ছুটে আসেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তিনি বাবুলকে নিজের ঘরে নিয়ে যেতে চাইলে বাবুল জানিয়ে দেন তিনি যে কাজে এসেছেন সেখানে যাবেন। পরে উপাচার্যের মধ্যস্থতায় সভামঞ্চের পৌঁছান বাবুল।

অথচ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল কিন্তু তার পরেও একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কেন এভাবে হেনস্থা শিকার হতে হল তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।

এসএফআই তরফে দাবি করা হয়েছে তারা প্রথমে বাবুলকে বাধা দেয়নি। তাদের অভিযোগছিল বিজেপির নীতির বিরুদ্ধে। বাবুল ভিড়ের মধ্যে দাঁড়িয়ে তার গায়ে হাত তোলার মিথ্যা অভিযোগ আনেন। আবার ছাত্রদের একাংশের দাবি, ধাক্কাধাক্কির সময় ছাত্রীদের গায়ে হাত তুলেছে বাবুলের নিরাপত্তারক্ষীরা। তারপরই বাবুলকে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠান শেষে ফেরার সময়ও বিক্ষোভের মুখে পড়েন বাবুল। ফের ছাত্রছাত্রীরা তাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। এখনও বিক্ষোভ চলছে। অন্যদিকে বিক্ষোভ সামাল দিতে গিয়ে নিগৃত হন উপাচার্যও। অসুস্থ অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব,এই পরিচয় ছাড়াও বাবুল সুপ্রিয় একজন সংগীতশিল্পী। আর বিশ্ববিদ্যালয় অনুষ্ঠানে সংগীতশিল্পী হিসেবে যোগ দিতে এসে তার সাথে ঘটে যাওয়ায় এই ঘটনায় উঠেছে সমালোচনার ঝড়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − 11 =

amaderbharat.com

Welcome To Amaderbharat.com, Get Latest Updated News. Please click I accept.