আরামবাগে প্রতিদিন ৫০০ মানুষকে খাওয়াচ্ছে বজরংবলী মন্দির কমিটি

গোপাল রায়, আরামবাগ, ৭ এপ্রিল: করোনা ভাইরাস জেরে চলছে লকডাউন। সাধারণ মানুষ ও দুঃস্থদের জুটছে না খাবার। তাই খাবারের বন্দোবস্ত করল আরামবাগের বজরংবলী মন্দির কমিটি। প্রতিদিন ৫০০ মানুষের খাবারের ব্যবস্থা করেছে সাত দিন ধরে তারা।

গৌরহাটি মোড়ে রয়েছে বজরংবলী মন্দির। এই মন্দির কমিটি প্রতিদিন দুপুরে এলাকার মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ করছে। খাবার দেওয়া হয় দুপুর দুটো থেকে। খাবারের জন্য লম্বা লাইন পড়ে। তাই তাড়াতাড়ি খাবার পেতে সকাল থেকে লম্বা লাইন পড়ে তবে, সশরীরে নয় ইট পেতে। আরামবাগের গৌরহাটি মোড়ের ২৪ নম্বর রাজ্য সড়কের রাস্তার উপড় সারি সারি ইটের টুকরো পেতে রেখে যায় মানুষ। সকলের বসার জন্য নির্দিষ্ট দূরত্বে দাগ কেটে দিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। সেই দাগের পাশে পাশে সকাল ছয়টা ইটের টুকরো রেখে যায় মানুষ।

গৌরহাটি মোড়ের এক বাসিন্দা শম্ভু মন্ডল বলেন, এই লকডাউনের জেরে কোনও কাজ নেই, বাইরের বেরোতে পারছি না। বাড়িতে চাল নেই, তাই উনুনে হাড়ি চড়ছে না। তাই দু’মুঠো খাবারের জন্য প্রতিদিন ভোরে উঠে আসতে হয় রাস্তার ধারে। রাস্তার ধার থেকে ইটের টুকরো খুঁজে রেখে যাই। সংগীতা মন্ডল নামে এক মহিলা বলেন, প্রচন্ড রোদে অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে কষ্ট হয় তাছাড়া, বাড়ির কাজকর্ম করতে করতে দেরি হয়ে যায়। সেই কারণে ইটের টুকরো রেখে যাই।

বজরংবলী কমিটির সদস্য বিশ্বজিৎ ঘোষ জানান, প্রতিদিন সাধারণ মানুষ ও দুঃস্থ মানুষদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এসব খরচ করা হচ্ছে বজরংবলী মন্দির কমিটির টাকা ও নিজেরা চাঁদা দিয়ে এই ব্যবস্থা করেছি। মন্দির কমিটি থেকে যেমন যা জোটে ভাত, ভাল, শাক, তরকারি রান্না করে দেওয়া হয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here